খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদদীঘিনালাপাহাড়ের সংবাদরামগড়শিরোনামস্লাইড নিউজ

অনুমতি ছাড়াই ফ্রান্সের ৮ নাগরিক খাগড়াছড়িতে

স্টাফ রিপোর্টার: অনুমতিপত্র ছাড়াই ফ্রান্সের ৮ নাগরিক রামগড় চেকপোস্ট টপকে খাগড়াছড়িতে প্রবেশ করেছে। পুলিশকে কোন তথ্য না দিয়েই তারা খাগড়াছড়িতে ঢুকে যায়। এরপর তারা খাগড়াছড়ি থেকে আবার দীঘিনালা উপজেলায় যান। তবে কোন অনুমতিপত্র না থাকায় দীঘিনালা থানা পুলিশ তাদের আবার জেলায় ফেরত পাঠিয়েছে।
জানা যায়, ৮জনের মধ্যে ১জনের বাড়ি খাগড়াছড়ির দীঘিনালায়। তার নাম হল বুদ্ধজয় চাকমা (৪১)। বুদ্ধজয় চাকমা প্রথমে বাংলা ভাষা জানেন না বলে সাংবাদিকদের জানান। কিন্তু পীড়াপীড়িতে একসময় তিনি বাংলা ভাষায় কথা বলেন। তিনি বলেন, ছোট সময় তিনি দীঘিনালা থেকে ফ্রান্সে চলে যান। সেখানে বড় হন, সেদেশেই বিয়ে করেন এবং সেদেশে নাগরিকত্ব পান। দীর্ঘদিন পর তিনি ফ্রান্সের বন্ধু ও মেহমানকে সাথে নিয়ে তার জন্মস্থানে বেড়াতে এসেছেন। তারা বাংলাদেশে (খাগড়াছড়ি) ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত থাকবেন।

রামগড় থানার ওসি আব্দুল হান্নান বলেন, দিন-রাত সর্বক্ষণ চেকপোস্টে পুলিশ পাহাড়া থাকে। যে বিদেশীরা খাগড়াছড়িতে গেছে তারা আমাদের কাছে কোন তথ্য দেয়নি। সম্ভবত তারা কোন সিভিল গাড়ি অথবা বিকল্প সড়ক ব্যবহার করেছে।

দীঘিনালা থানার ইনচার্জ উত্তম দেব বলেন, কোন অনুমতিপত্র ছাড়া ফ্রান্সের ৮ নাগরিক দীঘিনালায় এসেছিল। আমরা তাদের জেলায় ফেরত পাঠিয়েছি।
খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশ সুপার মোহাঃ আহমার উজ্জামান বলেন, পুলিশকে কোন তথ্য না দিয়ে অনুমতিপত্র ছাড়াই তারা খাগড়াছড়িতে প্রবেশ করেছে। এদের কেউ পর্যটক নয়, এরা বেড়াতে এসেছে বলে জানিয়েছে। এদের অনুমতি না থাকায় এখানের আইনশৃংখলা সংক্রান্ত সার্বিক পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে তাদের ফেরত পাঠানো হবে। তবে তারা চেকপোস্ট টপকে কিভাবে আসলো সে বিষয়টি দেখা হচ্ছে।
খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, আমার কাছে এরকম কোন তথ্য আসেনি। অনুমতি ছাড়া কোন বিদেশির জেলাতে অবস্থান করা অন্যায়। আমরা কাউকে অনুমতি পত্র দেইনি।