খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদপাহাড়ের সংবাদশিরোনামস্লাইড নিউজ

খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজের টয়লেটে পাওয়া গেল নবজাতক

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: সদ্যভূমিষ্ঠ এক নবজাতক পাওয়া গেছে খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজের ছাত্রীদের কমন রুমের টয়লেটে। ৬ সেপ্টেম্বর সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কন্যা শিশুটিকে উদ্ধার করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। তবে কে তাকে ওখানে ওভাবে ফেলে রেখে গেছে তার কোনো হদিস মেলেনি।

খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ রফিক উদ্দিন জানান, সকাল থেকে এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট জমা নেওয়া হচ্ছিলো। এ কারণে আজ কলেজে অনেক শিক্ষার্থীর আগমন ঘটেছিলো। ছাত্রীদের কমন রুমের টয়লেট থেকে আকস্মিক শিশুর কান্নার আওয়াজ শুনতে পায় শিক্ষার্থীরা। বিষয়টি কলেজ প্রশাসনকে জানানো হলে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়।

কলেজের আয়া রেনু বালা ধর বলেন, ‘আমি তখন বারান্দা ঝাঁড়ু দিচ্ছিলাম। শিক্ষার্থীরা জানানোর পর টয়লেটে গিয়ে দেখি শিশুটি টয়লেটের কমোডের অর্ধেক পানিতে ডুবে আছে।’

খাগড়াছড়ি সরকারি শিশু পরিবারের উপ-তত্ত্বাবধায়ক ও শহর সমাজসেবা কর্মকর্তা নাজমুল আহসান জানান, ‘শিশুটির প্রয়োজনীয় এবং প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে শিশুটিকে খাগড়াছড়ি আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডের জরুরী বিভাগে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।’

এদিকে শিশুটি বাঙালি নাকি পাহাড়ি তা এখনো নিশ্চিত হতে পারেনি প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। তবে শিশুটি ক্ষুদ্র-নৃ গোষ্ঠী সম্প্রদায়ের হতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

শিশুটিকে দত্তক নিতে ইচ্ছে পোষণ করেছেন সন্তানহীন অনেক দম্পতি। তার মধ্যে রাপ্রু মারমা নামে একজন চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের মাধ্যমে আবেদনও করেছেন।

রাপ্রু মারমা বলেন, ‘বিবাহিত জীবনের পাঁচ বছরেও নিঃসন্তান আমরা। তাই শিশুটিকে নিজের সন্তান হিসেবে লালন-পালন করতে চাই।’

খাগড়াছড়ি সদর থানার ওসি আবদুর রশিদ জানান, ‘এ বিষয়ে একটি সাধারণ ডায়েরী করা হয়েছে। শিশুটির নিরাপত্তা ও অভিভাবকত্বের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেবে আদালত।