চট্টগ্রাম সংবাদশিরোনামস্লাইড নিউজ

চট্টগ্রাম ইপিজেড খালপাড়স্থ সড়কের বেহলা দশা, জনদুর্ভোগ

চট্টগ্রাম অফিস: চট্টগ্রামের ইপিজেড থানাধীন আকমল আলী রোডস্থ পকেট গেইট সংলগ্ন খালপাড়স্থ দুই পাশের সড়কের বেহাল দশা দীর্ঘদিন যাবত, জনদুর্ভোগ ও ভোগান্তির শেষ নেই ওই এলাকার লক্ষাধিক জনসাধারণের। চট্টগ্রামের সিটি কর্পোরেশনের ৩৯নং ওয়ার্ডের আওতাভুক্ত এলাকাটিতে তেমন কোনো উন্নয়ন পরিলক্ষিত হয়নি। সরেজমিনে অনুসন্ধানে জানা যায়, ওই এলাকার ৯০ শতাংশ নারী-পুরুষ পাশ্ব^বর্তী তৈরি পোষাক কারখানায় চাকুরি করছেন। অধিকাংশ লোকজন দরিদ্র দিনমজুর ও নিন্ম আয়ের মানুষ।

বর্তমানে খালটির পরিবেশ অত্যন্ত শোচনীয় ও বিষাক্ত। খালের পানির পঁচা গন্ধে পরিবেশ দুষিত হচ্ছে মারাত্মক ভাবে। পঁচা ময়লা আবর্জনায় ভরপুর, খালের বর্জ্যরে পঁচা গন্ধে শ্বাস প্রশ্বাস নেওয়াই মানুষের জন্য কষ্টকর হয়ে পড়েছে। পাশর্^বর্তী কারখানা থেকে নিক্ষিপ্ত আবর্জনায় খালের পানি অত্যন্ত বিষাক্ত পদার্থে পরিণত হয়েছে। খালের পানির পঁঁচা গন্ধে পাশ্ববর্তী ভাড়াটিয়াদের বাসায় অবস্থান করাই কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। খালপাড় সংলগ্ন অবৈধ দখলবাজদের ইতিপূর্বে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক নিযুক্ত বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উচ্ছেদ করলেও আবারো স্থানীয় প্রভাবশালী একটি মহলের ছত্রছায়ায় অবৈধ দখলবাজদের দখলে চলে যায়।

সরেজমিনে দেখা যায়, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক কিছুদিন যাবত কচ্ছপ গতিতে খালপাড়স্থ সড়ক সংস্কারের কাজ চলছে। এ বিষয়ে কাজের অগ্রগতি সম্পর্কে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ৩৯নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. জিয়াউল হক সুমনের সাথে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে যোগাযোগ করা হলে, তিনি এ প্রতিবেদককে জানান, খালপাড়স্থ সড়ক সংস্কার ও আরসিসি দেওয়াল নির্মাণের জন্য চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ৮ কোটির অধিক টাকা বরাদ্দ করেছে, বর্তমানে কাজ চলছে।

খালপাড়স্থ দুই পাশের অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। স্থানীয় জনসাধারণের জনদুর্ভোগের কথা স্বীকার করে কাউন্সিলর জানান, অবিলম্বে জনদুর্ভোগ নিরসন করা হবে। আকমল আলী রোডের পকেট গেইটস্থ খালপাড় সংলগ্ন স্থানীয় এলাকাবাসীর দাবি, অবিলম্বে পকেট গেইট সংলগ্ন খালের দুই পাড়ের সড়ক সংস্কার পূর্বক সড়কটি জনসাধারণ ও যানবাহনের চলাচল উপযোগী করার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ।