চট্টগ্রাম সংবাদফটিকছড়িশিরোনামস্লাইড নিউজ

ফটিকছড়ি সৈয়দ বাড়ী দরবার শরীফে ২০ কিলোমিটার ব্যাপী বিশাল জসনে জুলুস

ফটিকছড়ি প্রতিনিধি: বিশ্বেব্যাপী সম্প্রীতির রোল মডেল ইসলাম ধর্ম ও হযরত মুহাম্মদ (দ) সৈয়দ বাড়ী দরবার শরীফের উদ্যোগে ২০ কিলোমিটার ব্যাপী জসনে জুলুসে ঈদে মিলাদুন্নবী (দ) জুলুস পালিত হয়েছে। গাউছিয়া সমিতি বাংলাদেশের আয়োজনে বিশাল জুলুসটি মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮টায় জাফত নগরস্থ তেলপারই সৈয়দ বাড়ি দরবার শরীফের পীর আল্লামা অধ্যক্ষ সৈয়দ শামসুল হুদা (র)র মাজার শরীফ জেয়ারতের মাধ্যমে সূচনা করেন সাজ্জাদানশীন পীরে তরিকত আল্লামা সৈয়দ মসিহুদ্দৌলা (মদ্দা জিল্লুহুল আলী)।

এতে প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (দ) র রওজা মোবারকের প্রতিকৃতি এবং বিভিন্ন কলেমা সম্ভলিত ব্যানার, ফেস্টুন হাতে আগত হাজার- হাজার আশেকে রাসুল (দ), সুন্নী জনতা শ্লোগানে-শ্লোগানে পদ যাত্রা, মোটর শোভাযাত্রা নিয়ে জাফত নগরস্থ মোহাম্মদ তকিরহাটে এক পথ সভায় মিলিত হয়। সেখানে ইউনিয়ন জাফতনগর পরিষদ, গাউছিয়া কমিটি এবং তকির হাটের ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দরা জুলুসকে স্বাগত জানান।

সেখান থেকে জাহানপুর হয়ে পাঁচ কিলোমিটার দূরে ধর্মপুর আজাদী বাজার চত্বরে আরেকটি পথ সভায় মিলিত হয়। সেখানে ধর্মপুর ইউনিয়ন পরিষদ, আজাদী বাজার ঈদে মিলাদুন্নবী (দ) উদযাপন কমিটি, আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের নেতৃবৃন্দ জুলুসের মিছিলকে স্বাগত জানায়। সেখান থেকে বখতপুর-সমিতিরহাট হয়ে সমিতিরহাট বাজারে আরেকটি পথসভা শেষে দক্ষিণ নিচিন্তাপুর হয়ে সৈয়দ বাড়ি বাগে হুদা খানকায়ে কাদেরিয়া নক্সবন্দিয়া সৈয়দিয়া প্রাঙ্গণে এসে মূল জমায়েত অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে হযরত মুহাম্মদ (দ) র জীবন-কর্ম, বেলায়ত, শান মান নিয়ে প্রধান অথিতির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান কলামিস্ট মাওলানা আবদুল মান্নান।

বিশেষ অথিতি ছিলেন আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আত চট্টগ্রাম মহানগর সভাপতি মাওলানা নুর মোহাম্মদ আলকাদেরী, শাহজাদা সৈয়দ তাওসীফুল হুদা, সোবহানীয়া আলীয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা হারুন রশিদ, উপাধ্যক্ষ মাওলানা জুলফিকার আলী, মাওলানা আবুল কালাম বয়ানী, মাওলানা জসিম আল কাদেরী, উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তৈয়ব, জাফতনগর ইউপি চেয়ারম্যান মুহাম্মদ আবদুল হালিম। মাওলানা আলী শাহর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, আজাদী বাজার ঈদে মিলাদুন্নবী (দ) উদযাপন কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব আবু আহমদ সওদাগর, মোহাম্মদ তকিরহাট ব্যবসায়ী সমিতির নেতা আবু সওদাগর, জাফত নগরের চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. জিয়া উদ্দিন, সমিতিরহাটের চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. নাসির উদ্দিন, ইসলামী ফ্রন্ট নেতা এস এম জাহাঙ্গীর, মাওলানা জসিম উদ্দীন আবেদী, শহিদুল্লাহ, মাওলানা আবছুর তৈয়বী প্রমুখ। এতে সাজ্জাদানশীন সৈয়দ মছিহুদৌল্লাহ বলেছেন, বিশ্বব্যাপী সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির রোল মড়েল হচ্ছে ইসলাম ধর্ম আর বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ (দ)। কারণ ইসলাম শব্দের অর্থ শান্তি। আর বিশ্বব্যাপী শান্তি প্রতিষ্টায় নিদর্শন হযরত মুহাম্মদ (দ) তার ৬৩ বছরের জিন্দেগী উৎস্বর্গ করেছেন।

আর বাংলাদেশ হচ্ছে সম্প্রীতির ধারক ও বাহক। বাংলাদেশের সম্প্রীতি উন্নয়ন ও শান্তি বিনষ্টতারীরা প্রতিনিয়ত নানান ষড়যন্ত্র করে এদেশকে বিশ্বের বুকে কলুষিত করতে চাইছে। কিন্তু ধর্মপ্রাণ মুসলিম জনতা ও প্রশাসন সব সময় সেই সব ষড়যন্ত্র পদদলিত করে এগিয়ে যাচ্ছে। প্রধান অতিথি মাওলানা এম এ মন্নান বলেন, বিশ্ব মুক্তির দ্রুত আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (দ) এর শুভাগমনে সারাবিশ্ব যখন জুলুসে জুলুসে ছালাতুস সালাম দিচ্ছেন। তখন একদল নবীর দুশমন বিশ্বব্যাপী সাম্প্রদায়িক সংঘাত সৃষ্টি করে বাংলাদেশ সহ সারা বিশ্ব অশান্ত করার চক্রান্ত করছে। আর সেখানে আজ আপমর সুন্নী জনতার জসনে জুলুস প্রমান করছে ইসলাম ধর্ম সম্প্রীতির মেলবন্ধন রচনাকারী।