খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদপাহাড়ের সংবাদরামগড়শিরোনামস্লাইড নিউজ

বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী সেতু-১ স্থলবন্দর পরিদর্শনে ভারতীয় হাই কমিশনার

রতন বৈষ্ণব ত্রিপুরা,রামগড়: রামগড় ও ভারতের সাব্রুম এলাকায় ফেনী নদীতে নির্মাণাধীন ভারত-বাংলাদেশ মৈত্রী সেতু ১ এর নির্মাণ কাজ, স্থলবন্দর এলাকা এবং মহামুনি বৌদ্ধ বিহার পরিদর্শণ করেছেন ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার রিভা গাঙ্গুলী।

১৬ জুন রবিবার বেলা ১১টার সময় রিভা গাঙ্গুলী তার সফর সঙ্গীদের নিয়ে রামগড় স্থলবন্দর এলাকায় পৌছলে তাকে আনুষ্ঠানিক অভ্যর্থনা জানান জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী ও জেলা প্রশাসক শহিদুল ইসলাম। এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ৪৩ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক লে. কর্ণেল তারিকুল হাকিম, খাগড়াছড়ি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এম সালাউদ্দিন, জেলা পরিষদ সদস্য মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু ও জুয়েল চাকমা-পার্থ ত্রিপুরা, উপজেলা চেয়ারম্যান বিশ্ব প্রদীপ কুমার কার্বারী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মে ইসরাত, অফিসার ইনচার্জ তারেক মো. আব্দুল হান্নানসহ বিভাগীয় কর্মকর্তাগন।

পরিদর্শন শেষে ভারতীয় হাই কমিশনার সাংবাদিকদের বলেন, পরিকল্পনা অনুযায়ী বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী সেতু ১ ও স্থলবন্দর কার্যক্রমের মধ্যে দিয়ে দু’বাংলার বানিজ্যিক সুবিধাসহ ভাতৃত্বের সেতুবন্ধন তৈরী হবে। এসময় ভারতীয় হাই কমিশনারের সাথে সফর সঙ্গী ছিলেন, ডিপুটি কমিশনার চট্টগ্রাম অনিদ্র ব্যানার্জি, ভারতীয় জাতীয় হাইওয়ের প্রজেক্ট প্রধান দিল ভাকসিংসহ পদস্থ কর্মকর্তাগণ। পরে রামগড় পাহাড়াঞ্চল কৃষি গবেষণা কেন্দ্রে। পরিদর্শন শেষে রামগড় পাহাড়ঞ্চল কৃষি গবেষণা কেন্দ্রের রেষ্ট হাউজে ভারতীয় হাই কমিশনারকে বাংলাদেশ পুলিশের চৌকস দল গার্ড অব অনার প্রদান করেন। পরে মধ্যান্ন ভোজ ও বিশ্রাম শেষে চট্রগ্রাম উদ্দেশ্যে রামগড় ত্যাগ করেন। এতে আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ- ভারত এর বিভিন্ন বিভাগের উচ্চপদস্ত কর্মকর্তাসহ জেলা ও উপজেলার স্থানীয় প্রিন্ট মিডিয়ার স্থানীয় সাংবাদিক বৃন্দ।

উল্লেখ্য ২০১৫ সালে ৬ জুন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদী ঢাকাতে সেতুটির ভিক্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। ৮২.৫৭ কোটি ভারতীয় রুপি ব্যয়ে ৪১২ মিটার দৈর্ঘ্য ও ১৪.৮০ মিটার প্রস্তের ব্রিজের কাজটি ২৭ অক্টোবর ২০১৭ হতে ২৭ এপ্রিল ২০২০ সাল পর্যন্ত কাজ সম্পন্ন করার কথা রয়েছে।