খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদপাহাড়ের সংবাদশিরোনামস্লাইড নিউজ

মাতৃ শোক বুকে ধারন করেই ত্রাণ নিয়ে ছুটছেন এমপি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: বয়োবৃদ্ধ মা উমাদিনী ত্রিপুরা (৯৬) মারা গেলেন মাত্র চারদিন আগে। সেই শোক কাটিয়ে উঠতে পারেননি এখনো। এরিই মধ্যে সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশও কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত। পার্বত্য জেলা খাগড়াছড়িতে রোগী না থাকলেও সারাদেশের সরকারি বিধি নিষেধে পড়ে অনেক দরিদ্র মানুষ এখন জীবন-জীবিকার চরম সংকটে।
সেসব মানুষের কথা ভেবে জীবন ঝুঁকি নিয়েই মাঠে নামতে হয়েছে প্রতিমন্ত্রী পদ-মর্যাদার শরণার্থী টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান ও খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কুজেন্দ্র  লাল ত্রিপুরাকে। তিনি জাতির এই ক্রান্ত্রিলগ্নে পারিবারিক শোকে চুপ না থেকে বুধবার থেকে নিজ উপজেলা দীঘিনালার দরিদ্র পাহাড়ি-বাঙালি মানুষের দ্বারে দ্বারে নিত্য প্রয়োজনীয় খাবার ও ভোগ্যপণ্য নিয়ে এগিয়ে এসেছেন।
প্রাথমিকভাবে নিজের ব্যক্তিগত এবং দলের সামর্থবান সহকর্মীদের সমন্বয়ে গড়ে তুলেছেন ২০ লক্ষ টাকার একটি নগদ তহবিল।
সে তহবিল থেকে বুধবার দীঘিনালা উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় কয়েক’শ মানুষের হাতে দলীয় সহকর্মীদের সাথে নিয়ে তুলে দিয়েছেন কয়েক দিনের প্রয়োজনীয় খাদ্য ও ভোগ্যপণ্য। তিনি এ প্রতিবেদককে জানান, ‘এই দুর্যোগ কবে নাগাদ কাটবে; সেটি আমাদের কারোই জানা নেই। দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনী মাঠে কাজ করছে বেসামরিক প্রশাসনের পরম সহযোগী হিশেবে। আমাদের দল এবং সরকারের বিভিন্ন সংস্থাও মাঠে সক্রিয়। তিনি জাতির এই সংকটকালে সকলকে জাতি-ধর্ম-দল-মত নির্বিশেষে সকলকে সামর্থ্য অনুযায়ী এগিয়ে আসারও আহ্বান জানান।
জেলা আওয়ামী লীগের সা: সম্পাদক নির্মলেন্দু চৌধুরী জানান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মাননীয় সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা’র নির্দেশনায় দলের সামর্থ্যবান নেতাকর্মীদের দান-অনুদানে ত্রাণ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এটি করোনা দুর্যোগের শেষ না হওয়া পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।
দীঘিনালা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি হাজী মো: কাশেম জানান, এটি জাতি-রাষ্ট্রের কঠিন চ্যালেঞ্জ। এই বিপদ মোকাবিলায় এমপি মহোদয়ের নেতৃত্বে দলের সকল স্তরের নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করায় জরুরী।