চট্টগ্রাম সংবাদরাঙ্গুনিয়াশিরোনামস্লাইড নিউজ

রাঙ্গুনিয়ায় দুর্গাপূজা মন্ডপ পরিদর্শন করলেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ

রাঙ্গুনিয়ায় প্রতিনিধি: তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপি বলেছেন, আমরা সাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র ব্যবস্থা থেকে বেরিয়ে এসেছি। একটি অসম্প্রদায়িক রাষ্ট্র নির্মাণের জন্য স্বপ্ন দেখেছিলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। বর্তমান আমাদের দেশের হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ, খ্রীষ্টান, মগ, বড়–য়া, চাকমা আমরা সবাই মিলেমিশে থাকি। বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রতির দেশ। বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রতির যে বন্ধন তা বর্তমান বিশ্বে বিরল। ধর্ম যার যার উৎসব সবার। এই চেতনা নিয়েই আমাদের এই বাংলাদেশ। শনিবার সন্ধ্যায় রাঙ্গুনিয়া উপজেলার বিভিন্ন পূজা মন্ডপ পরিদর্শন কালে তিনি একথা বলেন।

হাছান মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশে ২০০৮ সালে পূজা মন্ডপ ছিল মাত্র ১১ হাজার। দশ বছরের ব্যবধানে এবছর পূজা মন্ডপ হয়েছে ৩১ হাজার ১শটি। মানুষের মধ্যে ধর্ম পালনের ক্ষেত্রে সক্ষমতা বিরাজ করছে এবং অর্থনৈতিক সমৃদ্ধিও এসেছে। সেকারণেই ধর্মীয় উৎসব পালনের আগ্রহও বেড়েছে। শুধু পূজা উৎসবেই নয়, ঈদ উৎসবের সময়ও আগের তুলনায় অনেক বেশি উৎসব হয়, কেনাকাটাও অনেক বেশি করা হয়। এমনকি কোরবানির সময় পশু জবাইও আগের তুলনায় অনেক বেশি হয়। এটির কারণ হচ্ছে আমাদের দেশে গত ১০ বছরে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে, আওয়ামীলীগ সরকারের নেতৃত্বে মানুষের মধ্যে অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি এসেছে। এর ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে হলে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বের সরকার অব্যাহত রাখতে হবে।

রাঙ্গুনিয়ার বিভিন্ন পুজা মন্ডপ পরিদর্শন শেষে আর্থিক অনুদান প্রদান করেন। মন্ডপগুলো পরিদর্শনকালে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রাঙ্গুনিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাসুদুর রহমান, বাংলাদেশ হিন্দুধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি রাখাল চন্দ্র দাশ, রাঙ্গুনিয়া পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ শাহজাহান সিকদার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার শামসুল আলম তালুকদার, মাস্টার আসলাম খাঁন, আওয়ামীলীগ নেতা জসিম উদ্দিন তালুকদার, ইউপি চেয়ারম্যান রহিম উদ্দিন চৌধুরী, মীর তৌহিদুল ইসলাম কাঞ্চন, শেখ ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী, চট্টগ্রাম উত্তরজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নিখিল কুমার নাথ, রাঙ্গুনিয়া উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি বিভূতি ভূষণ দে, সাধারণ সম্পাদক দিলীপ দাশ, অধ্যাপক অসীম কুমার শীল, হিন্দু মহাজোটের সভাপতি তপন কুমার দত্ত, পূজা পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বিমল চন্দ্র দে আকাশ প্রমুখ।