খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদপাহাড়ের সংবাদমহালছড়িশিরোনামস্লাইড নিউজ

রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি পায়নি মহালছড়িতে বীরঙ্গনা হ্লাম্রাসং মারমা

মহালছড়ি প্রতিনিধি: মহালছড়িতে বীরাঙ্গনা হ্লাম্রাসং মারমা রাষ্ট্রীয়ভাবে স্বীকৃতি পাওয়ার আগেই বার্ধক্যজনিত কারণে দীর্ঘদিন অসুস্থ থাকার পর গতকাল রাত ৯ টায় নিজ বাড়িতে মারা যান। ফলে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা ছাড়ায় দাহক্রিয়া সম্পন্ন করা হলো। গতকাল ১১ আগষ্ট বুধবার রাত ৯ টায় উপজেলার বাবু পাড়া গ্রামে নিজ বাড়িতে ৬৫ বছর বয়সে বার্ধক্যজনিত কারণে তাঁর মৃত্যু হয়। আজ বিকাল ৩ টায় সামাজিক শ্মশানে তাঁর দাহক্রিয়া সম্পন্ন হবে।

স্থানীয় গ্রামবাসীরা জানান, বীরঙ্গনা হ্লাম্রাসং একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় পাক হানাদারদের দ্বারা নির্যাতিত হন। বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে নির্যাতন করে ছেড়ে দেওয়া হতো। মুক্তিযুদ্ধের সময় তার কারণে অনেক মুক্তিযোদ্ধা ও এলাকাবাসী পাক হানাদারদের নির্যাতনের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছিলো। উচিত ছিলো মৃত্যুর আগে বীরঙ্গনা হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়া। কিন্তু তা তিনি পেলেন না।

স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা এ,কে,এম হুমায়ূন কবীর বলেন, হ্লাম্রাসং মারমা কম সময়ের মধ্যেই বীরঙ্গনা হিসেবে অবশ্যই স্বীকৃতি পাবে। কিন্তু দুর্ভাগ্য, মৃত্যুর আগে তিনি কিছুই পেলেন না। মহালছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হারুনর রশিদ হ্লাম্রাসং মারমা’র মৃত্যু ঘটনাটি নিশ্চিত করেছেন।

মহালছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জোবাইদা আক্তার বলেন, বীরঙ্গনা হিসেবে গেজেট প্রকাশিত না হলে কাউকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাহকার্য কিংবা দাফন করার কোন সুযোগ নেই। তারপরও হ্লাম্রাসং মারমার দাহক্রিয়া সম্পন্ন করার জন্য খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে এবং মহাছড়ি উপজেলা পরিষদ এর পক্ষ থেকে ১৫ হাজার টাকা সহযোগিতা প্রদান করা হয়েছে।