খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদপাহাড়ের সংবাদবান্দরবান সংবাদরোয়াংছড়িশিরোনামস্লাইড নিউজ

রোয়াংছড়িতে আওয়ামীলীগ নেতাকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ

ডেস্ক রিপোর্ট: মোটর সাইকেল যোগে উপজেলা সদর থেকে জেলা সদরে আসার পথে বান্দরবান সদর উপজেলার শামুকঝিরি এলাকায় গতকাল (২২ জুলাই) দুপুরে উপজাতি সশস্ত্র সন্ত্রাসীগোষ্ঠী কর্তৃক বান্দরবানের রোয়াংছড়ি উপজেলার তারাছা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি মং থুই মারমাকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদের ও এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারপূর্বক আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদ খাগড়াছড়ি জেলা শাখা।

অদ্য সকাল ০৯:০০ ঘটিকায় খাগড়াছড়ি শহরস্থ সংগঠনের অস্থায়ী জেলা কার্যালয়ে এক জরুরী সভায় উক্ত নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়। সভায় জেলা সভাপতি মোঃ আসাদুল্লাহ আসাদের সভাপতিত্বে কেন্দ্রীয় আহবায়ক কমিটির সদস্য ও সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ইঞ্জি. আব্দুল মজিদ, খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সহ-সভাপতি মোঃ সুমন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহাদাৎ হোসেন কায়েশ, সহ-সম্পাদক শামীম হোসেন, মোঃ ওমর ফারুক, মোঃ সোহেল রানা, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আশ্রাফুল আলম রনি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

নিহতের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে নেতৃবৃন্দ বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে প্রতিনিয়ত হত্যাকান্ড, গুম, খুন ও চাঁদাবাজি করে এ অঞ্চল কে অপরাধের এক স্বর্গে পরিণত করেছে কুখ্যাত খুনি সন্তু লারমা ও প্রসীত বিকাশ খীসা। প্রশাসনের নমনীয়তা ও সরকারের নমনীয় পদক্ষেপের ফলে পাহাড়ে প্রতিনিয়ত ঝরছে নিরীহ মানুষের প্রাণ, বাড়ছে স্বজনদের আর্তনাদ। এ অবস্থা চলতে থাকলে পাহাড়ে প্রশাসন ও সরকারের প্রতি আস্থা কমবে সাধারণ পার্বত্যবাসীর। তাই অবিলম্বে ৩০ হাজার বাঙ্গালীর খুনী সন্তু লারমা ও প্রসীত বিকাশ খীসাকে গ্রেফতার, পাহাড় হতে প্রত্যাহারকৃত সেনা ক্যাম্পগুলো পুনরায় স্থাপন ও সেনাবাহিনীকে দিয়ে পাহাড়ে চিরুনী অভিযান পরিচালনা জন্য সরকারের নিকট জোর দাবি জানান বক্তারা।