খাগড়াছড়িগুইমারাপাহাড়ের সংবাদশিরোনামস্লাইড নিউজ

হাতিমুড়া বাজারে সরকারি জায়গা দখল করে প্লট বাণিজ্য: সওজ কোনো ব্যবস্থাই নিচ্ছে না

আল-মামুন,খাগড়াছড়ি: খাগড়াছড়ি জেলার গুইমারা হাতিমুড়া বাজারে সরকারী জায়গা দখল করে প্লট বাণিজ্য নিয়ে জাতীয় দৈনিক,পাহাড়ের আলো অনলাইনসহ বিভিন্ন মিডিয়ায় সংবাদ প্রকাশের পরও থামেনি দখল পক্রিয়া আর মোটা অংকের অর্থ বাণিজ্য। বরং দুর্নীতিবাজরাই বুক ফুলিয়ে ক্ষমতার প্রভাব খাঁটিয়ে চালিয়ে যাচ্ছে দখল বাণিজ্যের কাজ। তার পর দেখার কেউ নেই।

এ ব্যাপারে খাগড়াছড়ি সড়ক ও জনপদ (সওজ)’র নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ মোসলেহ উদ্দিন চৌধুরী একাদিক বার জানানোর পরও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে হবে বলে কাল ক্ষেপন করেন। সরকারী জায়গা দখলের সাথে নির্বাহী প্রকৌশলীর সখ্যতা রয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি মুঠোফোনে কথা বলার সাথে সাথে লোক পাঠাচ্ছেন বলে জানান।

স্থানীয় সূত্র জানায়, হাতিমুড়ায় সরকারী জায়গা দখলদারের নির্দেশদাতা ও পেচনের শক্তি সেই বড় বাবু। কিন্তু তিনি লোক চক্ষুর আড়ালে থাকায় কলকাটি নাড়লেও মাঠে থাকছে দখল দখলদারদের নাম। বাজারের প্রয়োজনে এ জায়গা বরাদ্দ দিতে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে এবং সড়ক ও জনপদের জায়গায় খুটি দিয়ে প্লট বিক্রয় করার অভিযোগের সত্যতা মিলেছে সরেজমিনে গিয়ে। স্থানীয় এলাকাবাসীর দাবী ক্ষমতা থাকলে অপরাধ করলেও এখন কিছুই হয় না। বরং যারাই অন্যায়ের বিরুদ্ধে কথা বলবে তারাই হবে শিকারির শিকার।

সম্প্রতি হাতিমুড়া বাজার পরিচালনা কমিটির সহ-সভাপতি মো: রিপন বলছিলেন, ক্ষমতা থাকলে দখল হয়। সারা দেশে দখল হচ্ছে। তাই পরিষদের চেয়ারম্যানের নির্দেশ আমার নিজ ক্ষমতা বলে এ জায়গা খুটি নিয়ে প্লট করা করেছি।

তবে তিনি সরকারী জায়গা দখল করা যায় কিনা এমন প্রশ্নে বলেন, ক্ষমতা থাকলে সবই সম্ভব বলে দম্ভ করে বড় বাবুকেই ঈগিত করেন। হাতিমুড়া বাজার পুলিশবক্সে উপস্থিত জনতার সম্মুখে তিনি আরো বলেন, চেয়ারম্যান সড়ক ও জনপদ বিভাগকে নিজে ম্যানেজ করবেন। হাতিমুড়া বাজারে স্থানীয় ব্যবসায়ী ও ক্রেতারা এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান  প্রকাশ্যে বাজারে এক ব্যাক্তিকে হুমকি দেওয়ার কথা জানান। এসময় দোষীদের তদন্ত সাপেক্ষে বিচার দাবী করেন স্থানীয়রা।

কে এই বড় বাবু? নির্দেশদাতা বড় বাবু ও স্থানীয় প্রভাবশালীদের নাম প্রকাশে ভয়-ভীত আর অনিহা প্রকাশ করেও প্রভাবশালী দূর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে দুদকের নজর নেই বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক স্থানীয় এলাকাবাসী জানান এই বড় বাবু আর কেউ নয় খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী।

স্থানীয়রা জানায়, প্রকাশ্যে সরকারী জায়গা দখল করে নিয়েছে স্থানীয় প্রভাবশালী মহলের অনুসারীরা। আইনকে বৃদ্ধাগুলি প্রদর্শন সড়ক ও জনপদের (সওজ)ও ৬০ ফুটের সরকারী জায়গার মধ্যে রাস্তার পাশের জায়গায় নিজ ক্ষমতাবলে ১১টি প্লট হিসেবে ব্যবহার করতে দখল করে নিয়েছে। ক্ষমতার প্রভাব-আর দলের দম্ভে নয় এবার নিজের ক্ষমতাকে কাজে লাগিয়ে দিন-দুপুরে প্রকাশ্যে এ অনিয়ম চললেও দেখার কেউ নেই।

অনিয়মের বিষয় স্বীকার করে হাতিমুড়া বাজার পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক জাহেদুল ইসলাম বলেন, আমি আপনার সাথে দেখা করবো। আপনি কোথাই আছেন। পরে মুঠোফোনে স্থানীয় এক ব্যাক্তিকে দিয়ে চাওয়া পাওয়া কত কি দিতে হবে তা জানতে ফোন করায় জাহেদুল ইসলাম।

Comment here