পাহাড়ের সংবাদরাঙ্গামাটি সংবাদরাজস্থলীশিরোনামস্লাইড নিউজ

রাজস্থলীর ঝুলন্ত সেতুটি ঝুঁকিপূর্ণ,পারাপারে চরম দুর্ভোগ

রাঙামাটি প্রতিনিধি: রাঙামাটির রাজস্থলী উপজেলার একমাত্র ঝুলন্ত সেতুটির পাঠাতন নড়বরে হয়ে যাওয়ায় অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। পারাপারে চরম দুর্ভোগ পৌহাচ্ছে ওই এলাকার ১৫ গ্রামের আট হাজার বাসিন্দা। কারণ উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের সাথে যোগাযোগের প্রধান মাধ্যম হচ্ছে এ ঝুলন্ত সেতুটি।
সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে, ১৯৯১ সালে স্থানীয় জনসাধারণের চলাচলের সুবিধার্থে উপজেলার কাপ্তাই হ্রদের উপর সেনাবাহিনীর ২৩ ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্ট নিজস্ব অর্থায়নে ৪০০ফুট লম্বা ও ৪ফুট প্রসস্থের এ ঝুলন্ত সেতুটি নির্মাণ করে। পরবর্তীতে ইউনিয়ন পরিষদের অর্থায়নে বিভিন্ন সময় সেতুটি সংস্কার করা হলেও ঠিকাদাররা নি¤œ মানের কাজ করার কারণে বর্তমানে সেতুটির বেহালদশা হয়েছে বলে স্থানীয়রা জানান। বর্তমানে ওই গ্রামের বাসিন্দারা ভারী মালামাল নিয়ে পার হচ্ছে অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে। কৃষকরা তাদের পণ্য বোঝাই করতে হিমসিম খেতে হচ্ছে।
স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, ১নং ঘিলাছড়ি, ০২নং গাইন্দ্যা ইউনিয়ন ও বাঙ্গালহালিয়া ইউনিয়নে যাতায়াতের প্রধান মাধ্যম হচ্ছে এ সেতুটি। বর্তমানে সেতুটির বেহাল হওয়ার কারণে পারাপারে অনেক অসুবিধার সম্মুখিন হতে হচ্ছে বলে তারা জানান। ওই উপজেলার ১নং ঘিলাছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সুশান্ত প্রসাদ তঞ্চাঙ্গ্যা জানান, উপজেলার সৌন্দর্যের প্রতীক গুরুত্বপূর্ণ ওই ঝুলন্ত সেতুটি মেরামত না হওয়ায় রোগীদের হাসপাতালে নিতে সমস্যা হচ্ছে। এছাড়া শিক্ষার্থীরা অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে সেতুটি পার হয়ে স্কুলে যাতায়াত করছে। রাজস্থলী তাইতং পাড়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের  প্রধান শিক্ষিকা ¯িœগ্ধা চাকমা জানান, সেতুটি বেহাল হওয়ার কারণে শিক্ষার্থীরা ঝুঁকি নিয়ে স্কুলে আসছে। সেতুটি মেরামত না করলে বর্ষাকালে ঐ সেতু দিয়ে শিক্ষার্থীরা চলাচল করতে পারবে না। ফলে শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে উপস্থিতির হার কমে যাবে। তিনি বলেন, জরুরী ভিত্তিতে সেতুটি সংস্কার করা প্রয়োজন।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লীজা খাজা বলেন, উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ ওই ঝুলন্ত সেতুটি সংস্কারে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের এলজিএসপি থেকে জরুরী ভিত্তিতে ফান্ড প্রদান করা হচ্ছে। আশাকরি, খুব কম সময়ের মধ্যে ওই সেতুটি সংস্কারের কাজ শুরু করা হবে।