জাতীয় সংবাদপাহাড়ের সংবাদবান্দরবান সংবাদলামাস্লাইড নিউজ

‘সোনালী আসর ভৈরব’

প্রিয়দর্শী বড়ুয়া: পার্বত্য জেলা বান্দরবানের আলীকদম উপজেলা মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষিকা জয়নব আরা বেগম কিশোরগঞ্জের ভৈরবের শিমুল কান্তি উচ্চ বিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত ‘সোনালী আসর ভৈরব’-এ সংবর্ধিত ও সম্মাননা স্মারক পেয়েছেন। তিনি প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় পরিচালিত শিক্ষক বাতায়নে শ্রেষ্ঠ কন্টেন্ট নির্মাতা হিসেবে এ পুরস্কার লাভ করেন। একইসাথে এ অনুষ্ঠানে দেশসেরা আরো শিক্ষকগণ সংবর্ধনা ও সম্মাননা স্মারক পেয়েছেন।

জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর এক্সেস টু কাযার্লয়ের অধীনে ২০০৯ সালে শুরু হয়েছিল জাতীয় শিক্ষক বাতায়ন। জাতীয় শিক্ষক বাতায়ন কর্তৃক দেশব্যাপী পরিচালিত জরিপে ‘সেরা শিক্ষক’ নির্বাচিত হয়েছেন ২’শ ৬৭জন শিক্ষক। এসব শিক্ষকদের সংবর্ধনা ও সম্মাননা স্মারক দিতে উদ্যোগ নেন ভৈরবের শিমুল কান্তি উচ্চ বিদ্যালয়। শিক্ষক বাতায়নে শিক্ষকদের তৈরি করা কন্টেন্টের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের পাঠদান করা হয়ে থাকে। কন্টেন্ট নির্মাতাদের মধ্য থেকে প্রতি সপ্তাহে ২ জনকে সেরা কন্টেন্ট নির্মাতা নির্বাচন করা হয়।

এ সংবধর্না অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তর মহাপরিচালক বনমালী ভৌমিক। বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হাজী আফিকুল ইসলাম হারিছের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন- মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর, ময়মনসিংহ অঞ্চলের উপ-পরিচালক এস.এম. খলিকুজ্জামান, ভৈরব পৌরসভার মেয়র ফকরুল ইসলাম আক্কাস ও ময়মনসিংহ টিচার্স ট্রেনিং কলেজের সহকারী অধ্যাপক হাবিবুল ইসলাম সুমন, কিশোরগঞ্জ জেলা শিক্ষা অফিসার মোস্তাফিজুর রহমান ও ভৈরব উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম সেন্টু। অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন- ভৈরব উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার শাহরিয়ার বেনজিস, রাউজান উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সাইফুল ইসলাম, শিমুলকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জুবায়ের আলম দানিছ।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন শিমুলকান্দি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আজহারুল ইসলাম। সংবর্ধিত শিক্ষকদের মাঝে বক্তব্য রাখেন- আলীকদম আদর্শ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা জয়নব আরা বেগম, রাণীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুস সামাদ, ঢাকার অগ্রণী স্কুল এ- কলেজের সহকারী অধ্যাপক গাজী সালাউদ্দিন সিদ্দিক, ঢাকার ক্যামব্রিয়ান স্কুল এ- কলেজের প্রভাষক হাসান হাফিজুর রহমান, ফরিদপুর সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক অপূর্ব কুমার দাস, ময়মনসিংহের মূসলিম গার্লস স্কুল এ- কলেজের সহকারী শিক্ষক রাহাত আরা জাহান ও আনোয়ারা খাতুন, মেহেরপুরের বড় বাজার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক হানিফা সুলতানা ও ঢাকার রেসিডেন্সিয়াল স্কুলের সহকারী শিক্ষক সৈয়দ মাহবুব আমীরি ও অনুষ্ঠানের মূল উদ্যোক্তা এবং শিমুলকান্দি উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ নবী হোসেন । অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ঢাকার গবর্নমেন্ট ল্যাবরেটরি হাইস্কুলের সহকারী শিক্ষিকা ইসমত আরা মমতাজ ও হবিগঞ্জের পুটিজুরী এস.সি. উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পংকজ কান্তি গোপ।প্রধান অতিথি বলেন, আধুনিক রাষ্ট্র গড়তে হলে প্রত্যেক ছাত্র-ছাত্রীদের তথ্য প্রযুক্তি সম্পর্কে জ্ঞান থাকতে হবে। তাই প্রত্যেক অভিভাবকদের উচিত তাদের সন্তানদের মোবাইল ফোন, ল্যাপটপ ইত্যাদি ডিভাইস ব্যবহার শেখাতে হবে। এর মাধ্যমে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলা সম্ভব হবে। বক্তরা বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত রূপকল্প ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলার লক্ষে সারাদেশের শিক্ষকদের শিক্ষক বাতায়নের মাধ্যমে একত্রে করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গুণি এ শিক্ষক ২০১৪ সালে এক্সেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) থেকে সেরা শিক্ষক অ্যাওয়ার্ড লাভ করেন। ব্রিটিশ কাউন্সিলের কানেক্টিং ক্লাসরূম স্কুল অনলাইন পার্টনারশীপের মাধ্যমে ২০১৫ সালে প্রাথমিক শিক্ষার ওপর ল-নের স্কটস প্রাইমারি স্কুল ভিজিট ও জেলা পর্যায়ে সেরা শিক্ষক হওয়ায় ২০১৭ সালে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে স্টাডি ট্যুরে মালয়েশিয়া ভ্রমণ করেন।

পাঠকের উদ্দেশ্যে প্রতিকৃয়া জানতে চাইলে জয়নব আরা বেগম বলেন, আয়োজক কর্তৃপক্ষকে জানাই অশেষ ধন্যবাদ। এ উদ্যোগ শিক্ষকের মাল্টিমিডিয়া কন্টেন্ট তৈরীর মাধমে দেশের প্রত্যেক বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষকে ডিজিটাল করা সহজ হবে। তিনি বলেন, শিক্ষকতা জীবনে আমার আরো একটি অর্জন যুক্ত হলো। সুযোগ পেলে আমি আরো নতুন উদ্ভান নিয়ে এগিয়ে যাবো।