চট্টগ্রাম সংবাদজাতীয় সংবাদশিরোনামস্লাইড নিউজ

ভুল সিজারে মা-শিশুর মৃত্যুর অভিযোগে বিক্ষুব্ধ জনতার আল-নূর হাসপাতাল ভাংচুর

ফটিকছড়ি প্রতিনিধি: ফটিকছড়ি পৌর সদরের আল-নূর হাসপাতালে ভুল সিজার অপারেশনে মা ও নবজাতকেরমৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বিক্ষুদ্ধ জনতা ওই হাসপাতাল ভাংচুর করেছে।  মঙ্গলবার রাত ৯টায় এঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন রয়েছে বলে দাবী করেছেন ফটিকছড়ি থানার ওসি আবু ইউসুফ মিয়া।
স্থানীয় সূত্র জানায়, ফটিকছড়ির হারুয়ালছড়ি ইউনিয়নের তালতলা এলাকার রহমত উল্লাহর স্ত্রী শিরু আকতার (২৫) কে মঙ্গলবার দুপুর ১২.৩০ মিনিটের সময় ভর্তি করা হয়। বিকাল ২.৩০ মিনিটের সময় তাকে সেখানে সিজার অপারেশন করা হয়। বিকাল ৩টার পর রোগীর অবস্থা খারাপ বলে দ্রুত চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজহাসপাতালে ভর্তি করাতে হবে বলে রোগীর স্বজনকে দিয়ে ”চমেকে” পাঠায়। সেখানে যাওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক জানায়, রোগীকে ভুল অপারেশন করা হয়েছে। তাই মা ও শিশুর মৃত্যু হয়েছে। মুঠোফোনে খবরটি ফটিকছড়ি পৌছালে রোগীর আত্মীয় স্বজনরা ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠে। তারা রাত ৯টায় আল-নূর হাসপাতালে বিক্ষোভ মিছিল করে মা-শিশুর মৃত্যুর বিচার দাবী করে। এক পর্যায়ে ক্ষুদ্ধ জনতা হাসপাতালে
ভাঙচুর চালায়। খবর পেয়ে ফটিকছড়ি থানার পুলিশ এসে দ্রুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে।
নিহত শিশু আকতারের ভাই মো. কামাল উদ্দিন অভিযোগ করে বলেন, আমার বোনকে ভূল
অপারেশন করে হত্যা করে আল-নূর হাসপাতাল। তারা মা-শিমুর মৃত্যুর পর তারা মাথা কাটা শিশুটি তার মায়ের কাপড়ের ভিতর লুকিয়ে দ্রুত মেডিকেল নিতে হবে বলে আমাদের পাঠিয়ে দেয়। আমি বোনের ও নবজাতক শিশুর হত্যার বিচার চাই। এ ব্যাপারে আল-নূর হাসপাতালে সিজার অপারশেন করানো ডাক্তার অরবিন্দ চাকমা বলেন, রোগিটি অজ্ঞান করানোর পর আর জ্ঞান ফিরেনি। সম্ভবত ওই রোগীর হার্টেও সমস্যা ছিল। অপারেশন শুদ্ধই ছিল।
এ ব্যাপারে ফটিকছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আবু ইউসুপ মিয়া বলেন, ক্ষুদ্ধ জনতা হাসপাতালে ভাংচুর করার খবর পেয়ে দ্রুত এসে তাদেও নির্বৃত্ত করি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করি। হাসপাতালে পুলিশ অবস্থান করছে।