পাহাড়ের সংবাদবান্দরবান সংবাদলামাশিরোনামস্লাইড নিউজ

লামায় পাহাড় ধস থেকে বেঁচে যাওয়া অসহায়দের পাশে প্রশাসন

লামা (বান্দরবান) প্রতিনিধি: লামায় ভারী বৃষ্টিপাতের ফলে পাহাড় ধসে শিশু ও নারীসহ একই পরিবারের ৩ জন নিহত হওয়ার ঘটনা থেকে অলৌকিকভাবে বেঁচে যাওয়া শিশুকন্যা আঁখিমণির ভবিষ্যৎ দায়িত্ব নিতে প্রশাসন আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। উল্লেখ্য, ৩ জুলাই দুপুরে পাহাড় ধসের ঘটনায় সরই ইউনিয়নের কালাইপাড়ার মোঃ মঈনুদ্দিনের ছেলে মোঃ হানিফ (৩০), তার স্ত্রী রাজিয়া বেগম (২৫) ও  কন্যা শিশু হালিমা বেগম (৩) মারা যান।

এ ঘটনার হাত থেকে অলৌকিকভাবে নিহত মোঃ হনিফের পিতা মঈনুদ্দিন, তার স্ত্রী ও ৬ বছর বয়সী নাতনী আঁখিমণি অন্যঘরে থাকায় প্রাণে বেঁচে যান। গতকাল বুধবার উপজেলা নির্বাহী অফিসার নুর-এ-জন্নাত রুমী ইউপি চেয়ারম্যান ফরিদুল আলমের মাধ্যমে নিহতের পিতা মঈনুদ্দিন ও শিশুকন্যা আঁখিমণিকে তার কার্যালয়ে নিয়ে এসে শিশুকন্যার পোষাক-পরিচ্ছদ ও ভরন-পোষনের জন্য নগদ অর্থ প্রদান করেন। একই সাথে মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় সদ্য এতিম হওয়া আঁখিমনির পরবর্তি জীবনের দায়িত্ব নেয়ার মানবিক আগ্রহ পকাশ করেছেন।

আরও উল্লেখ্য যে, পাহাড় ধসের খবর পাওয়ার সাথেই উপজেলা নির্বাহী অফিসার নূর-এ জান্নাত রুমি, আলীকদম জোন কমান্ডার লে: কর্ণেল মাহবুবুর রহমান পিএসসি, উপ-অধিনায়ক মেজর আবদুল কাদের, লামা সাবজোন অধিনায়ক মেজর ইসরাত আহমেদ, লামা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইসমাইল ও পুলিশ পরিদর্শক আপ্পেলা রাজু নাহা দূর্ঘটনা স্থলে পৌঁছে উদ্ধার অভিযান করেন। এর আগ থেকে সেনা সদস্যরাসহ লামা ফায়ার সার্ভিস কর্মীগণ উদ্ধার অভিযান শুরু করেন। জানাগেছে, নিহত পরিবারের জন্য পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী বীরবাহাদুর (এমপি) তাৎক্ষণিক ৯০ হাজার টাকা এবং সেনা বাহিনীর পক্ষ থেকে দাফন খরছ ও জরুরী খাদ্য সামগ্রী সরবরাহ করা হয়।