খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদপাহাড়ের সংবাদশিরোনামস্লাইড নিউজ

চঞ্চুমনি চাকমার উপর হামলার প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে বিক্ষোভ

ডেস্ক রিপোর্ট: খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা চেয়ারম্যান চঞ্চুমনি চাকমার ওপর হামলা, আলুটিলায় ইউপিডিএফ সদস্য জ্ঞানেন্দু চাকমাকে গুলি করে হত্যার প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে তাৎক্ষণিকভাবে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ(পিসিপি), হিল উইমেন্স ফেডারেশন ও গনতান্ত্রিক যুব ফোরাম খাগড়াছড়ি জেলা শাখা।

শুক্রবার (১৩ জুলাই ২০১৮) বিকাল সাড়ে ৩টায় তিন সংগঠনের নেতাকর্মীরা স্বনির্ভরের ইউনাইটেড পিপলস্ ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ)-এর কার্যালয়ের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে স্বনির্ভর বাজার পুলিশ বক্সের সামনে থেকে ঘুরে শহীদ অমর বিকাশ চাকমা সড়কে গিয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ মাধ্যমে শেষ হয়। এতে বক্তব্য রাখেন, পিসিপি খাগড়াছড়ি জেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তপন চাকমা, সাধারণ সম্পাদক অমল ত্রিপুরা ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক রতন স্মৃতি চাকমা।

বক্তারা অভিযোগ করে বলেন প্রশাসনের প্রত্যক্ষ মদদে সংস্কারবাদী জেএসএস সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্য দিবালোকে খাগড়াছড়ি শহরের প্রেসক্লাবের মতো জায়গায় প্রশাসনের নিরাপত্তা বলয়ের মধ্যে উপজেলা চেয়ারম্যান চঞ্চুমনি চাকমার উপর হামলা চালিয়ে তাকে অপহরণ ও হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে। এই সন্ত্রাসীরা গতকাল আলুটিলায় ইউপিডিএফ কর্মী জ্ঞানেন্দু চাকমাকে গুলি করে হত্যা করেছে এবং আজ সকালে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতাল থেকে জ্ঞানেন্দু চাকমার মরদেহ নিতে আসা তার ছোট ভাইকে পুলিশের সামনে থেকে তুলে নিয়ে মারধর করেছে।

বক্তারা অভিযোগ করে আরো বলেন, সংস্কারবাদী সন্ত্রাসীরা নিহত ইউপিডিএফ সদস্য জ্ঞানেন্দু চাকমার মরদেহ তার বাড়িতে না নেয়ার জন্য নানাভাবে পরিবারের লোকজনকে হুমকি দেয়ায় কারণে তার পরিবার ও আত্মীয়-স্বজনরা খাগড়াছড়ি শহরের উত্তর খবংপুজ্জে শ্মশানে তার দাহক্রিয়া সম্পন্ন করতে চেয়েছিল। কিন্তু প্রশাসন মরদেহটি হস্তান্তর না করায় তা করতে পারেনি। প্রশাসনের এমন কর্মকা-ে তারা নিন্দা জানান।

বক্তারা বলেন, সরকার পরিকল্পিতভাবে সংস্কার-মুখোশ বাহিনী লেলিয়ে দিয়ে ইউপিডিএফ-এর ন্যায়সঙ্গত আন্দোলনকে বাধাগ্রস্ত করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। তারই অংশ হিসেবে একের পর এক ইউপিডিএফ নেতা-কর্মী, সমর্থককে খুন, অপহরণ, হত্যা চেষ্টা করা হচ্ছে। খুন-গুম করে, নিপীড়ন নির্যাতন চালিয়ে জনগণের কাক্সিক্ষত পূর্ণস্বায়ত্তশাসনের আন্দোলনকে কিছুতেই স্তব্দ করা যাবে না বলে তারা সরকারকে জানিয়ে দেন।

বক্তারা রাষ্টীয় মদদপুষ্ট সন্ত্রাসী সংস্কার-মুখোশদের অপকর্মের প্রতিবাদে এবং জাতিধ্বংসের রাষ্ট্রীয় ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানান। সমাবেশ থেকে বক্তারা অবিলম্বে জ্ঞানেন্দু চাকমাকে হত্যা, চঞ্চুমনি চাকমার উপর হামলাকারী সংস্কারবাদী সন্ত্রাসীদের চিহ্নিত করে গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।