চট্টগ্রাম সংবাদফটিকছড়িস্লাইড নিউজ

সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভান্ডারীর (কঃ) ৩০তম ওরশ শরীফ বৃহস্পতিবার

ফটিকছড়ি প্রতিনিধি: মাইজভান্ডার দরবার শরীফের শাহানশাহ্ হযরত সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভান্ডারী (কঃ) ৩০তম ওরশ শরীফ বৃহস্পতিবার (২৬ আশ্বিন)। যথাযত ধর্মীয় মর্যাদায় মাইজভান্ডার গাউসিয়া হক মন্জিলে ব্যাপক কর্মসূচির মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হবে। ওরশের বিভিন্ন কর্মসুচীর মধ্যে রয়েছে বা’দে ফজর রওজা শরিফে গিলাফ চড়ানো, দিনব্যাপী খত্মে কুরআন, জিকির-আজকার, মিলাদ মাহ্ফিল এবং রাত ১১টায় আলোচনা ও কেন্দ্রিয় মাহ্ফিল। কেন্দ্রিয় মাহফিলে সভাপতিত্ব ও আখেরী মোনাজাত পরিচালনা করবেন মাইজভাণ্ডার শরিফ গাউসিয়া হক মনজিলের সাজ্জাদানশীন সৈয়দ মোহাম্মদ হাসান মাইজভাণ্ডারী। শাহানশাহ্ হযরত সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভাণ্ডারী ট্রাস্টের উদ্যোগে রয়েছে ‘ইসলামের ইতিহাস এবং ঐতিহ্য’ সম্বলিত দুর্লভ চিত্র ও ভিডিও প্রদর্শনী, উপদেশমূলক, দিক-নির্দেশনা সম্বলিত প্রচার, বিশুদ্ধ পানীয় জলের ব্যবস্থা, প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা, পর্যাপ্ত অস্থায়ী টয়লেটের ব্যবস্থা।

শাহানশাহ্ হযরত সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভাণ্ডারী ট্রাস্টের ৬ দিন ব্যাপী কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিভিন্ন মসজিদে কুরআন তেলাওয়াত ও মিলাদ মাহফিল, ‘তাসাওউফের আলোকে সামাজিক ন্যায় বিচার’ শীর্ষক সেমিনার, ট্রাস্ট নিয়ন্ত্রণাধীন স্ব-স্ব প্রতিষ্ঠানে মাইজভাণ্ডারীয়া ত্বরিকার স্বরূপ উন্মোচক অছিয়ে গাউসুল আযম হযরত সৈয়দ দেলাওর হোসাইন মাইজভাণ্ডারী (কঃ)-এর জীবনী আলোচনা, র‌্যালি, বৃক্ষরোপণ, দেশের বিভিন্ন এলাকায় অবস্থিত পিছিয়ে পড়া ৩৬টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহকে ‘সবার জন্য শিক্ষা’ প্রকল্পের আওতায় চেক প্রদান অনুষ্ঠান, ফটিকছড়ি উপজেলার রেজিস্টার্ড ৫৪টি এতিমখানায় শিক্ষার্থীদের একবেলা খাবার সরবরাহ, এছাড়া দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের মাইজভাণ্ডারী গাউসিয়া হক কমিটি বাংলাদেশ বিভিন্ন শাখা কমিটির ও চট্টগ্রাম মহানগরের উদ্যোগে খতনা ক্যাম্প, স্বেচ্ছায় রক্তদান, রক্তের গ্র“প নির্ণয়, কর্ণ ছেদ্দন, বিনামূল্যে সেলাই মেশিন ও শিক্ষা সামগ্রী বিতরণ, মরদেহ সংরক্ষণের আইস বক্স প্রদান, পরিস্কার পরিচ্ছতার জন্য সিটি মেয়রকে রিকসা ভ্যান প্রদান, কবরস্থান পরিস্কার পরিচ্ছন্ন ও জনকল্যাণমূলক কাজ উরস শরিফ উপলক্ষে পালন করা হয়।

উরস উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসনের আইন-শৃঙ্খলা সহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ ইতোমধ্যে আশেক-ভক্ত ও মাইজভাণ্ডারী গাউসিয়া হক কমিটি বাংলাদেশ বিভিন্ন শাখার সদস্যবৃন্দ’র উপস্থিতিতে মাইজভাণ্ডার শরীফ মুখরিত। দুর দুরান্ত থেকে আগত আশেক-ভক্ত ও জায়েরীনদের সুবিধার্থে গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা, যানবাহন নিয়ন্ত্রণ ও আইন শৃংখলা রক্ষায় পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েনসহ মন্জিলের স্বেচ্ছাসেবকগণ সার্বক্ষণিক টহলে নিয়োজিত থাকবে এবং পুরো মন্জিল এলাকা সিসিটিভি ক্যামেরার আওতায় থাকবে।

এছাড়া দরবারে যাতায়াতের সুবিধার্থে নগরীর মুরাদপুর থেকে দুপুর ১০টা হতে প্রতি ঘণ্টায় একটি করে বিআরটিসি’র বিশেষ বাস যা সরাসরি মাইজভাণ্ডার শরিফের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে।