চট্টগ্রাম সংবাদফটিকছড়িশিরোনামস্লাইড নিউজ

অন্তরালে সর্তা খালের বালির মহাল দখল: ফটিকছড়িতে সন্ত্রাস-নৈরাজ‌্যের প্রতিবাদ সভা

ফটিকছড়ি প্রতিনিধি: ফটিকছড়ির সর্তা খালের অবৈধ বালির মহাল দখলের জন্য কতিপয় সন্ত্রাসী বাহিনীর দুই গ্রুপে মারামারি-দাঙ্গা-সন্ত্রাস-নৈরাজ্য  এবং ব্যবসায়ীরা  হয়রানীর প্রতিবাদে এক সভা হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে ধর্মপুর কমিটি বাজার চত্বরে প্রতিবাদ সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন ফটিকছড়ি থানার সেকেন্ড অফিসার সঞ্জয় ঘোষ।এ. সামাদ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রতিষ্টাতা আলহাজ্ব মো. ইদ্রিস মিয়ার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন ধর্মপুর ইউপি’র প্যানেল চেয়ারম্যান মো. শহিদুল ইসলাম আকাশ, ইউপি সদস্য মোহাম্মদ হোসেন, মো. হাসেম, শোয়েব সিকদার, বজল আহমদ, কমিটি বাজার এ. সামাদ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রতিষ্টাতা আলহাজ্ব মো. ইদ্রিস মিয়া, আবু জাফর আলম, জমিদার হাজী ইিদ্রস, মোহাম্মদ মিয়া, প্রবীন আওয়ামীলীগ নেতা মো. আবদুল খালেক, রুহুল আমীন, নুরুল আলম, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, ব্যবসায়ী নেতা মো. ফারুক আহমদ, মো. লোকমান সওদাগর, মাবুদ সওদাগর হাসান উল্লাহ প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, ফটিকছড়ির পূর্ব সীমান্তের রাক্ষুসী সর্তা খাল  আমাদের চির কালের দু:খ। এই খালের ভাঙ্গণে সারাজীবন এই অঞ্চলের মানুষ ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। সরকারী তালিকাভুক্ত এই খালের বালির মহালটি বেশ কবছর যাবৎ ইজারা না হওয়ায় বিভিন্ন রাজনৈতিক ও প্রভাবশালী মহলের নামে-বেনামে বালি চােররা সক্রীয়। তাদের অন্ত:দন্ধ , দখল ণৈরাজ্য এলাকায় ব্যাপক সন্ত্রাসের সৃষ্টি করেছ। সম্প্রতি দুই গ্রুপ বারংবার প্রকাশ্যে অস্ত্র নিয়ে মারামারি করেছে।
এতে এলাকার শান্তি শৃংখলা নষ্ট হচ্ছ। ব্যবসায়ীরাও তাদের রোষানলের শিকার হচ্ছে। তাই এই প্রতিবাদ সভা। এসব বন্ধ করার জন্য আইন শৃংখলা বাহিনীর প্রতি উদাত্ব আহবান জানান। ফটিকছড়ি থানার সেকেন্ড অফিসার সঞ্জয় ঘোষ বলেন, এলাকায় শান্তি শৃংখলা নষ্টকারী কে কোন দল ? কোন গ্রুপ বড় নয়। যে বা যারাই শৃংখলা নষ্ট করবে তাদের বিরুদ্ধ আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। সম্প্রতি মারামারিতে দুই পক্ষ মামলা করেছে। অভিযুক্ত আসামীদের অনতিবিলম্বে গ্রেফতার করা হবে। এলাকাবাসী ঐক্যবদ্ধ থাকবেন। সমস্যা হলে পুলিশকে জানাবেন।