চট্টগ্রাম সংবাদফটিকছড়িশিরোনামস্লাইড নিউজ

করোনা পরিস্থিতিতে ফটিকছড়িতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজ করছে চা শ্রমিকরা

শাহনেওয়াজ নাজিম, ফটিকছড়ি: উৎপাদনমুখী শিল্প চা বাগানগুলো চালু রাখার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধামনমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গত মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) গণভবন থেকে বেলা ১১টায় ভিডিও কনফারেন্সে দেশের ৬৪ ডেপুটি কমিশনারদের (ডিসি) নির্দেশনা দেয়ার সময়ে এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী এমন নির্দেশ দেন।

ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী বলেন, চা বাগানগুলো খোলা রাখলে সমস্যা হবে না। চা শ্রমিকরা প্রাকৃতিক পরিবেশে চা পাতা সংগ্রহ করেন বিক্ষিপ্ত অবস্থায়। তাদের মাস্কের ব্যবস্থা করে কাজে লাগানো যেতে পারে। তারা চা পাতা জমা দেয়ার সময় যেন দূরত্ব মেনে চলেন। এভাবে চা বাগানগুলো চালু রাখা যেতে পারে বলে নির্দেশনা দেন তিনি। নির্দেশনা মেনে ফটিকছড়ির ১৭টি চাবাগানের শ্রমিকরা কাজ করে যাচ্ছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, মাস্ক পরে অন্তত ৩ ফিট দূরত্ব বজায় রেখে চা পাতা সংগ্রহ করছে তারা। এরপর একই নিয়মে পাতা জমা দিচ্ছে। চা ফ্যাক্টরিতেও একই নিয়মে কাজ করে যাচ্ছে। হাঁটাচলার সময়েও দূরত্ব বজায় রাখছে। শ্রমিকরা যাতে কিছুক্ষণ পর পর হাত ধুতে পারে সেজন্য বাগানের প্রতিটি সেকশনে রাখা হয়েছে সাবান-পানি। শ্রমিকদের কঠোর নজরদারিতে রেখেছে মাঝিরা।
পঞ্চবটি চাবাগানের সত্ত্বাধিকারী ও বাংলাদেশ টি এসোসিয়েশন চট্টগ্রামের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নাসির উদ্দিন বাহাদুর বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ মোতাবেক চাবাগান খোলা রেখেছি। করোনা ভাইরাস যাতে গ্রাস করতে না পারে সেভাবে সতর্ক থেকে কাজ বলা হয়েছে। সে ব্যাপারে সতর্কতা অবলম্বন করে শ্রমিকরা যাবতীয় কাজ করছে।