খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদপাহাড়ের সংবাদমিডিয়া সংবাদশিরোনামস্লাইড নিউজ

খাগড়াছড়িতে যৌতুকবিহীন বিয়ে: প্রসংশনীয় ভূমিকা রাখলো পার্বত্য প্রেসক্লাব

পাহাড়ের আলো ডেস্ক: খাগড়াছড়িতে অসহায় এক মেয়ের যৌতুক বিহীন বিয়ের আয়োজন করেছে স্থানীয় পেশাজীবি সাংবাদিকদের অন্যতম সংগঠন পার্বত্য প্রেসক্লাব ও দৈনিক সবুজ পাতার দেশ পত্রিকা । ৮ নভেম্বর রবিবার কোর্ট মসজিদ মাকের্টস্থ অস্থায়ী কার্যালয়ে এ বিয়ের আয়োজন করার পর কাজী মো: হাফেজ ইসমাইল হোসেন এ বিবাহ রেজিস্ট্রেশন করেন।

চার লক্ষ টাকা কাবিন নামায় যৌতুক বিহীন এ বিয়ের বর হলেন রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার মারিশ্যার মাদ্রাসা পাড়া এলাকার বাসিন্দা মৃত আব্দুর রাজ্জাক এর ছেলে জামশেদ আলম। কনে মোছাম্মৎ সহিদা আক্তার খাগড়াছড়ি শালবনের সাহেব আলীর মেয়ে। বাঘাইছড়ি পৌরসভার সাবেক কমিশনার মো: আলাউদ্দিন এবং খাগড়াছড়ি পৌরসভার কমিশনার মো: আনোয়ার হোসেন বিয়েতে স্বাক্ষী হিসেবে কাবিন নামায় স্বাক্ষর করেন।

বাঘাইছড়ির বাসিন্দা মৃত আব্দুর রাজ্জাক এর ৪ কন্যা ও ১ ছেলের মধ্যে জামশেদ চতুর্থ সন্তান। জামশেদের চার বোনের একজন উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক, দুইজন বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে উচ্চ পদে কর্মরত। জামশেদ স্নাতক পর্যন্ত পড়ালেখা করেছেন।

যৌতুকবিহীন বিয়ের ব্যাপারে জামশেদ বলেন, ‘‘ যৌতুকের জন্য অনেক মেয়েকে যথাসময়ে বিয়ে দিতে পারেন না অভিভাবকরা। ছোটবেলা থেকে এ ধরনের অনেক ঘটনা আমাকে পীড়া দিতো। আমার যথেষ্ট সহায় সম্বল আছে। আমার এ যৌতুক বিহীন বিয়ে দেখে আরো অনেক যুবক এগিয়ে আসবেন এমন প্রত্যাশা আমার। পার্বত্য প্রেসক্লাবের সাংবাদিক ভাইয়েরা এবং আমার খালাত ভাই কামাল হোসেন, বোন লিলি ইসলাম, মিনা ইসলাম, মনি ইসলাম ও সুমা ইসলামের সার্বিক সহযোগীতায় আমি এ বিয়ে করতে পেরে খুবই আনন্দিত। আমি সহিদা আক্তারের সাথে আজীবন যাতে সুখে শান্তিতে সংসার জীবন অতিবাহিত করতে পারি এজন্য সকলের কাছে দোয়া চাই।’’

বিবাহ উপলক্ষে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় পার্বত্য প্রেসক্লাবের সভাপতি দেব প্রসাদ ত্রিপুরা বলেন, শুধু সংবাদ সংগ্রহ ও পরিবেশনের মধ্যে সীমাবদ্ধ না থেকে এধরনের সামাজিক কর্মকান্ডে নিজেদের সম্পৃক্ত করাই পার্বত্য প্রেসক্লাবের মূল লক্ষ্য।

পার্বত্য প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জুলহাস উদ্দিন উল্লেখ করেন, করোনা দুর্গত মানুষের মধ্যে খাদ্যশস্য বিতরন, প্রতিবন্ধীদের কর্মসংস্থানে সহযোগীতা, বেকারদের মধ্যে হাঁস মুরগী বিতরনের মতো অনেক জনকল্যানমুখী কার্যক্রম বাস্তবায়ন করেছে এবং ভবিষ্যতেও করবে।

বিবাহ অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রতিবন্ধী কর্মকর্তা মো: শাহজাহান, রেশম উন্নয়ন বোর্ডের ম্যানেজার সিদ্ধার্থ শংকর চৌধুরী, শালবনের প্রবীন ব্যক্তিত্ব মাওলানা মো: সিরাজুল ইসলাম ও খাগড়াছড়ি রিপোর্টাস ইউনিটির সভাপতি সিনিয়র সাংবাদিক চাইথোয়াই মারমা, পাহাড়ের আলো পত্রিকার সম্পাদক ও বঙ্গটিভি জেলা প্রতিনিধি সাংবাদিক মো: মোবারক হোসেন, পার্বত্য প্রেসক্লাবের অর্থ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন, সদস্য সুজন বড়ুয়া, বকুল বিকাশ চাকমা, লোকমান হোসেন, নুর মোহাম্মদ, আশেক উল্ল্যাহ, দৈনিক জনতা পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি আব্দুর রহিম হৃদয় এবং বর কনে উভয় পক্ষের শতাধিক আত্মীয়স্বজন । পার্বত্য প্রেসক্লাব ও দৈনিক সবুজ পাতার দেশ পত্রিকার আয়োজনে দুপুরে প্রীতিভোজের মধ্য দিয়ে বিবাহ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়।