খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদপাহাড়ের সংবাদশিরোনামস্লাইড নিউজ

খাগড়াছড়িতে শীতজনিত রোগে ৭শিশুর মৃত্যু

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: শীতজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে ১৪দিনে ৭শিশু মৃত্যু তয়েছে। গত কয়েকদিনের প্রচন্ড ঠান্ডায় বেড়েছে নিউমোনিয়া আক্রান্তের সংখ্যা। রোগীদের চিকিৎসা দিতে হিমশিম খাচ্ছে চিকিৎসকরা। আতঙ্কিত না হয়ে শিশুর বাড়তি যতœ নেওয়ার পাশাপাশি নিউমোনিয়া প্রতিরোধে পরার্মশ দিয়ে যাচ্ছেন  চিকিৎসকরা। প্রশাসনসহ বিভিন্ন সংস্থা এবার প্রচুর কম্বল বিতরণ করলেও তা পর্যাপ্ত নয় বলে দাবি স্থানীয়দের।

খাগড়াছড়িতে এবার বেড়েছে প্রচন্ড ঠান্ডা। তবে এ ঠান্ডা সবচেয়ে বেশী পাহাড়ের গ্রামঞ্চলে। এতে সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়ছে দুর্গম এলাকার মানুষ। ঠান্ডার প্রভাবে শীতজনিত রোগে আক্রান্ত হচ্ছে শিশুরা। শ্বাসকষ্ট, জ্বর, ঠান্ডা ছাড়াও শিশুরা বেশী আক্রান্ত হচ্ছে নিউমোনিয়া ও ডায়রিয়ায়। নতুন বছরের প্রথম ১৪দিনে মারা গেছে ৭শিশু। ঠান্ডায় আক্রান্ত শিশুদের বেশীর ভাগের বয়স ৬ থেকে ১৮মাস। বাড়তি রোগীর সেবা দিতে হিমশিম খাচ্ছে চিকিৎসক ও নার্সরা। খাগড়াছড়ি জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসছে রোগীরা।

শীতের কারণে নবজাতক ও শিশুরা নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছে বেশী। তবে অনেক শিশু সিবিয়ার নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়ে আশংকাজনকভাবে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে। শীত আসার পর থেকে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে ১২শ রোগী চিকিৎসা নিয়েছে খাগড়াছড়ি হাসপাতালে। খাগড়াছড়ি জেলা সদর হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স ঈপশিতা ত্রিপুরা বলেন, শীত শুরু হবার পর হতে ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা অনেক বেশি। মাঝেমধ্যে রোগীদের বেডে জায়গা দেওয়া যায় না। ঠান্ডার মধ্যে বারান্দায় চিকিৎসা দিতে হচ্ছে তাদের। ’

খাগড়াছড়ি জেলা সদর হাসপাতালের শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ রাজেন্দ্র ত্রিপুরা জানান, গ্রামাঞ্চলে নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেশী বলছে ডাক্তারা। অসাবধানতার কারণে অনেকে সিভিয়ার নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছে। ‘গত কয়েকদিনে প্রচুর রোগী ভর্তি হয়েছে। এদের মধ্যে অনেকে সিভিয়ার নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছে। ১২ দিনে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালের ৬ জন শিশু মারা গেছে।