আলীকদমে সেনা অভিযানে আগ্নেয়াস্ত্রসহ সন্ত্রাসী আটক

লামা (বান্দরবান) প্রতিনিধি: দেশের জাতীয় নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসছে সন্তাসী চাঁদাবাজ সমাজ বিরোধীরা মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে। তারই ধারাবাহিকতায় লামা- আলকিদমে সপ্

মাটিরাঙ্গায় বেলছড়ি স্পোর্টিং ক্লাবের উদ্যোগে গোল্ডকাপ ফুটবল টুনামেন্ট
বিজিবি দিবস ও গুইমারা বর্ডার গার্ড হাসপাতালের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত গুইমারাতে
খাগড়াছড়িতে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উদযাপন

লামা (বান্দরবান) প্রতিনিধি: দেশের জাতীয় নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসছে সন্তাসী চাঁদাবাজ সমাজ বিরোধীরা মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে। তারই ধারাবাহিকতায় লামা- আলকিদমে সপ্তাহের ব্যবধানে সেনা অভিযানে অস্ত্রসহ তিনদফায় সন্ত্রাসী ও চাাঁদবাজ আটকের ঘটনা ঘটেছে। গতকাল নিয়মিত সেনা অভিযানে আলীকদমের রোয়াম্ভু এলাকার মিরিঞ্জা পাহাড়ে একটি সন্ত্রাসী আস্তানায় অভিযান চালিয়ে ৪টি আগেয়াস্ত্রসহ সামরিক সরঞ্জাম উদ্ধার ও এক সন্ত্রাসীকে আটক হয়। জানা গেছে, আটককৃত সন্ত্রাসী সুরেশ চাকমাা বনপুর-গয়ালমারা এলাকা থেকে ইতোপূর্বে সেনা অভিযানে ধৃত ডেঙ্গা (কাজল) বাহিনীর সক্রিয় সদস্য।

সোমবার রাতে আলীকদম জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল মাহবুবুর রহমান পিএসসি’র নেতৃত্বে উপ অধিনায়ক মেজর আবদুল কাদের ও সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার আক্তার হোসেন এই অভিযান পরিচালনা করেন। এসময় সেনা টহল দল একটি থ্রিনট থ্রি রাইফেল, ৫টি বুলেট, ১টি এলজি-দেশিয় বন্দুক-১টি কার্তুজ ও ২টি এসবিবি এল উদ্ধার করেন। এর আগে ২৪ জুলাই জোনের উপ-অধিনায়ক মেজর আবদুল কাদের এর নেতৃত্বে লামা ছাগল খাইয়া থেকে একটি দেশীয় কাটা বন্দুক ও পোষাক উদ্ধার করে সেনাবাহিনী। এ দু’টি অভিযানে নানা ধরণের সামরিক সরঞ্জাম উদ্ধার করায় স্থানীয়রা  স্বস্তি নেমে এসেছে।

গত কয়েকদিন ধরে আনসার বাহিনীর সাদৃশ্য পোশাক পরা একদল স্শস্ত্র উপজাতি সন্ত্রাসীরা উপজেলার চেক্ষ্যং ইউপির বিভিন্ন গ্রামে চাঁদা আদায় ও ত্রাস সৃষ্টি করে আসছিল। সে সাথে সন্ত্রাস-চাঁদাবাজদের উৎপাতে, গ্রামের প্রান্তিক কৃষক ও বিভিন্ন শ্রেণির মানুষ রীতিমত জিম্মি দশায় পড়েন। আলীকদমে চৈক্ষ্যং কলাঝিরি, বাঘেরঝিরি, সোনাইছড়ি, ভরিরমুখ, রোয়াম্ভু, দরদরী ইত্যাদি স্থানে এসব সন্ত্রাসীদের আনাগোনার খবর পাওয়া গেছে। অপরদিকে লামা উপজেলার ছোট বমু, মেরাখোলা-বেগুণঝিরি, চিউনিরমুখ, কুলাক্ষাপাড়া, লুলাইন, ক্যায়াজুপাড়া, নাইক্ষ্যংমুখ ইত্যাদি স্থানে ব্যাবসায়ি ও দরিদ্র কৃষকদের কাছ থেকে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে চাঁদা আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এসব সন্ত্রাসীদের পাকড়াও করতে আলীকদম জোনের সেনা সদস্যরা তৎপরতা জোরদার করা হয়েছে। অবশেষে সোমবার রাতে আলীকদম রোয়াম্ভু এলাকা থেকে অস্ত্র ও সন্ত্রাসী আটক হওয়ায় স্থানীয়দের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে। এদিকে ধৃত আসামীকে পুলিশে সোপর্দ করা হলে তার বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট ধারায় মামলার করা হয়েছে।