চট্টগ্রাম সংবাদফটিকছড়িশিরোনামস্লাইড নিউজ

ইসলামের গণবাদী সূফিতাত্ত্বিক দর্শন দেশ ও বহির্বিশ্বে প্রসারিত করেন সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (রহ.)

চট্টগ্রাম অফিস: মাইজভাণ্ডার দরবার শরীফের সাজ্জাদানশীন আওলাদে রাসূল (দ.) শাহ্সূফী মাওলানা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (মা.জি.আ.) বলেছেন, মহানবীর (দ.) ইল্ম ও জ্ঞানের উত্তরাধিকারী হলেন আউলিয়ায়ে কেরাম। যুগে যুগে আল্লাহর নৈকট্যধন্য ওলী-মনীষীগণ মানুষকে ইসলামের দীপ্তিতে আলোকিত করেন এবং সুপথ দেখিয়ে আসছেন। আর ইসলামের তাত্ত্বিক, প্রায়োগিক ও অন্তর্নিহিত দর্শনই হচ্ছে সূফীবাদ। সূফীবাদই ইসলামের মূল নির্যাস। ইসলামের ফলিত তাত্ত্বিক অন্তর্গূঢ় সূফিতাত্ত্বিক দর্শন ও মাইজভাণ্ডারী ত্বরীক্বা দেশ ও বহির্বিশ্বে বিস্তৃতভাবে তুলে ধরে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন শাহ্সূফী মাওলানা সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (রহ.)। তাঁর মতো কীর্তিমান ত্যাগী নিবেদিত প্রাণ আধ্যাত্মিক মনীষীর শূণ্যতা কখনো পূরণ হবার নয়।

৮৩ তম খোশরোজ শরীফ উপলক্ষে ‘দেশ ও বহির্বিশ্বে সূফীবাদী দর্শন প্রচার-প্রসারে হযরত সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানীর (রহ.) অবদান’ শীর্ষক সেমিনারে সভাপতির বক্তব্যে সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (মা.জি.আ.) একথা বলেন। আজ ৩০ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার বিকেলে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব বঙ্গবন্ধু হলে অনুষ্ঠিত সেমিনারের আয়োজন করে আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়া মাইজভাণ্ডারীয়া চট্টগ্রাম জেলা।

সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি মেয়র আল্হাজ্ব আ জ ম নাসির উদ্দীন। তিনি বলেন, ইসলামের সত্যিকার দর্শন ও রূপরেখা মানুষের মাঝে নির্মোহভাবে তুলে ধরে আসছেন মহাত্মা আউলিায়ে কেরাম। তেমনি অসাধারণ আধ্যাত্মিক ব্যক্তিত্ব হযরত শাহ্সূফী মাওলানা সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (রহ.)। সন্ত্রাস-জঙ্গিাদ ও ইসলামের নামে গর্জে ওঠা ফিতনা ফাসাদ থেকে বেরিয়ে আসতে এ ধরনের ওলী মনীষীদের পদাংক অনুসরণ করতে হবে। আল্লাহ পাকের নৈকট্যধন্য ওলীগণই আমাদের জন্য অনুসরণীয় ব্যক্তিত্ব। সেমিনারে প্রধান আলোচক ছিলেন ইসলামিক স্ট্যাডিস বিভাগের অধ্যাপক ড. মোরশেদুল হক।

সেমিনারে অধ্যক্ষ গোলাম মো: খান সিরাজীর লিখিত মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অ্যাডভোকেট কাজী মহসীন চৌধুরী। হযরত মাওলানা বাকের আনসারীর সঞ্চালনায় পঠিত প্রবন্ধের ওপর আলোচনায় অংশ নেন বীর চট্টগ্রাম মঞ্চের সম্পাদক সাংবাদিক সৈয়দ ওমর ফারুক, বাংলাদেশ টেক্সেস আপিলাত ট্রাইব্যুনালের সাবেক প্রেসিডেন্ট মো: সোলাইমান এফসিএ, বাংলাদেশ চা বোর্ডের সচিব গোলাম মাওলা, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ফ্যাকাল্টি অব আর্টস এন্ড হিউম্যানেটিস বিভাগের ডীন অধ্যাপক ড. এম সেকান্দর চৌধুরী, অধ্যাপক হযরত মাওলানা ড. খলিলুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আল্হাজ্ব মো: আলমগীর খান মাইজভাণ্ডারী, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবী বিভাগের অধ্যাপক ড. এস.এম রফিকুল আলম, লেখক ও সাংবাদিক মোঃ নূরুল আফছার তৈয়বী, অধ্যক্ষ মাওলানা গোলাম মো: খান সিরাজী, আন্জুমান চট্টগ্রাম মহানগর সভাপতি খলিফা বোরহান উদ্দীন, সাধারণ সম্পাদক ইউছুফ রেযা মিন্টু, দক্ষিণ জেলা সাধারণ সম্পাদক কাজী মো: শহীদুল্লাহ প্রমুখ। মিলাদ কিয়াম শেষে মুসলিম উম্মাহর কল্যাণ, বিশ্বের মজলুম মানবতার পরিত্রাণ ও দেশবাসীর ওপর আল্লাহর রহমত কামনায় মুনাজাত পরিচালনা করেন শাহ্সূফী মাওলানা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ক.)। সেমিনারে বহু ভক্ত জনতা অংশগ্রহণ করেন।