খাগড়াছড়িতে ব্যাংক কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিম সভা, নিরাপত্তা জোড়দারের উদ্যোগ

 খাগড়াছড়িতে ব্যাংক কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিম সভা, নিরাপত্তা জোড়দারের উদ্যোগ

স্টাফ রিপোর্টার: খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের কনফারেন্স রুমে ব্যাংক ও আর্থিক ব্যবস্থাপনায় নিরাপত্তা সংক্রান্ত মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। ৩ এপ্রিল বুধবার সাড়ে ৪টার দিকে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। মূলত আসন্ন ঈদ-উল-ফিতর সামনে রেখে ব্যাংক লেনদেনকে কেন্দ্র করে চুরি, ছিনতাই, জঙ্গি হামলা প্রতিরোধ বা প্রতিহত করার পূর্ব প্রস্তুতি হিসেবে খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশ এবং ব্যাংক কর্মকর্তাদের এই গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন খাগড়াছড়ি জেলার পুলিশ সুপার জনাব মুক্তা ধর পিপিএম (বার)। উক্ত সভায় খাগড়াছড়ি জেলার জেলা প্রশাসক মোঃ সহিদুজ্জামান সহ খাগড়াছড়ি জেলার সকল রাষ্ট্রায়ত্ত ও

বেসরকারি ব্যাংক কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।  পুলিশি কার্যক্রমের সাথে ব্যাংকের সমন্বয় করে অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্ঘটনাসমূহ রোধকল্পে যেসব বিষয় আলোচনা হয় তা হল ব্যাংক ভবনগুলোর নিরাপত্তায় নিরাপত্তা প্রহরী নিশ্চিত করা, ব্যাংকের ভিতরে লেনদেন সিসি ক্যামেরার আওতায় নিয়ে আসা এবং সর্বোপরি অনলাইন ব্যাংকিং সিস্টেমকে সুরক্ষার আওতায় নিয়ে আসা।

আলোচনা সভায় খাগড়াছড়ি জেলার পুলিশ সুপার বলেন একটি দেশের অর্থনৈতিক স্তম্ভের মুল অংশের একটি ব্যাংকিং সেক্টর যেখানে সাধারন জনগন, ব্যাবসায়ীগণ তাদের কষ্টার্জিত টাকা গচ্ছিতসহ লেনদেন করে থাকেন। আমাদের দেশে ঈদ সহ সকল বড় উৎসবকে কেন্দ্র করে একটি নাশকতাকারী ও অপরাধীরা সক্রিয় হয়ে এই ব্যাংকিং সেক্টরকে লক্ষ্য করে বিভিন্ন ধরনের অভিনব অপতৎপরতা চালায়। এই সময় ব্যাংক লুট, জাল টাকার বিস্তার, ছিনতাই, অজ্ঞান পার্টি, মলম পার্টির দৌরাত্ম বৃদ্ধি পায়। তাই এমন ধরনের অপতৎপরতা রুখে দিতে ব্যাংকের ভিতর ও তার আশেপাশের সিসি ক্যামেরাগুলো সচল রেখে ভিডিও ফুটেজ সংরক্ষণ করার জন্য পুলিশ সুপার মহোদয় ব্যাংক কর্মকর্তাদের বিশেষ তাগিদ দেন। এটিএম বুথ থেকে টাকা উত্তোলনের সময় বোরকা পরিহিত মহিলাদের, হেলমেট এবংমাস্ক পরিহিতদের মুখ উন্মুক্ত রেখে টাকা উত্তোলন করার বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য বলেন। নিরাপত্তা প্রহরী বাড়ানো, তাদের ব্যাবহৃত অস্ত্র পরীক্ষাসহ বিশেষ সর্তকতা অবল্বনের জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন। এসময় পুলিশ সুপার মহোদয় ব্যাংক কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে বলেন আপনারা নির্ভয়ে আপনাদের কার্যক্রম চালিয়ে যান, যেকোন নাশকতা রোধে আমাদের গোয়েন্দা নজরদারি, অনলাইন মনিটরিংসহ ব্যাংক কেন্দ্রিক দিবা-রাত্রি টহল ডিউটি জোরদার আছে। পাশাপাশি যেকোন সন্দেজনক কিছু দেখলে অতি দ্রুত সংশ্লিষ্ট থানা বা খাগড়াছড়ি জেলার হট লাইন নাম্বারে যোগাযোগের অনুরোধ জানান।

এসময় খাগড়াছড়ি জেলার প্রশাসক মোঃ সহিদুজ্জামান উক্ত আলোচনা সভায় তার বক্ত্যবের শুরুতেই পুলিশ সুপারকে ধন্যবাদ জানায় অতি দ্রুত এমন পদক্ষেপ নিয়ে সকল ব্যাংক কর্মকর্তাদের সেচেতন করার জন্য এবং জেলার নিরাপত্তা বলয় বৃদ্ধি করার জন্য। জেলা প্রশাসক মহোদয় ব্যাংকিং নিরাপত্তা বৃদ্ধির লক্ষ্যে করনীয় বিষয়গুলো অতিদ্রুত সম্পন্নের তাগিদ দেন। তিনি আরো বলেন খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশ, খাগড়াছড়ি জেলার সামরিক ও আধা-সামরিক বাহিনীর সম্মিলিত প্রচেষ্টায় আসন্ন ঈদ-উল-ফিতরসহ সকল বড় উৎসব নির্বিঘ্নে পালিত হবে এবং খাগড়াছড়ি জেলার সম্মানিত নাগরিকগণ উৎসব মুখর পরিবেশে সকল উৎসব পালন করবে এই আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

পাহাড়ের আলো

https://pahareralo.com

সর্বাধিক জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল। সর্বশেষ সংবাদ সবার আগে জানতে চোখ রাখুন পাহাড়ের আলোতে।

Related post