খাগড়াছড়িতে নারী ও শিশু স্বাস্থ্য উন্নয়ন বিষয়ক অগ্রগতি পর্যালোচনা সভা

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: বাংলাদেশে মাতৃমৃত্যুর হার প্রতি লাখে ১৭০ জন। প্রতিবছর গর্ভ ও প্রসবজনিত কারণে ৭ হাজার ৩০০জন নারীর মৃত্যু হয়। মাতৃ মৃত্যুর এ হার কমি

রামগড়ে আদালত কর্তৃক সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতার
নৌমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে রামগড়ে প্রস্তুতি সভা
লক্ষ্মীছড়িতে ব্রীজের গার্ডারের কাজের সময় বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে এক শ্রমিকের মৃত্যু বিস্তারিত আসছে…

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: বাংলাদেশে মাতৃমৃত্যুর হার প্রতি লাখে ১৭০ জন। প্রতিবছর গর্ভ ও প্রসবজনিত কারণে ৭ হাজার ৩০০জন নারীর মৃত্যু হয়। মাতৃ মৃত্যুর এ হার কমিয়ে আনতে বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ, কমপক্ষে চারবার চেক-আপ, প্রাতিষ্ঠানিকভাবে প্রসব করানোসহ জনসচেতনা সৃষ্টির উপর গুরুত্বারোপ করা হয়েছে।

২৬ ডিসেম্বর বুধবার খাগড়াছড়ির সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে “ নারী ও শিশু স্বাস্থ্য উন্নয়ন বিষয়ক ” অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় এ অভিমত ব্যক্ত করা হয়। বেসরকারী সমাজ উন্নয়ন সংগঠন ইয়ং পাওয়ার ইন সোশ্যাল এ্যাকশন (ইপসা) এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

খাগড়াছড়ির ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা: সরোয়ার হোসেন মাহমুদ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ পর্যালোচনা সভায় খাগড়াছড়ি মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের সহকারী পরিচালক ডা:আশুতোষ চাকমা,খাগড়াছড়ি প্রেসক্লাবের সভাপতি জীতেন বড়–য়া, পানছড়ি স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: সঞ্জিব ত্রিপুরা,পানছড়ির পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সোহাগময় চাকমা অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন। এছাড়া অনুষ্ঠানে ইপসার প্রকল্প ব্যবস্থাপক মো: জসিম উদ্দিন, টেকনিক্যাল অফিসার মো: হাবিবুর রহমান বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে গত এক বছরের কার্যক্রম পর্যালোচনা করা হয়। সকলের জন্য স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে সরকারী বেসরকারী সকল পর্যায়ে যার যার অবস্থান থেকে ভুমিকা রাখার আহবান জানানো হয়।