• June 24, 2024

খাগড়াছড়িতে শুদ্ধি অভিযান আতংক, তালিকায় কারা ?

নুরুচ্ছাফা মানিক: দুর্নীতি, মাদক, টেন্ডারবাজ ও সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে সরকারের চলমান শুদ্ধি অভিযানের আতঙ্ক বিরাজ করছে পাহাড়ী জনপদ খাগড়াছড়িতে। দেশব্যাপী চলমান অভিযানের অংশ হিসেবে খাগড়াছড়িতে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ, জাতীয় ও আঞ্চলিক রাজনৈতিক সংগঠনের প্রভাবশালী নেতাসহ চাকরীজীবী ও ব্যবসায়ীদের সম্পত্তির হিসাব, ব্যক্তিগত ও স্বজনদের তথ্য সংগ্রহ করছে বিভিন্ন গোয়ান্দা সংস্থা। সংস্থাগুলোর স্থানীয় এজেন্টের পাশাপাশি কেন্দ্র থেকে এসব তথ্য সংগ্রহের কাজ চলছে। ভৌগলিক ও কৌশলগত কারণে পাহাড়ে কোন সংস্থাকে দিয়ে সরকার অভিযান পরিচালনা করবে তা এখনও নিশ্চিত হয়নি। তবে গোয়ান্দা সংস্থা গুলোর তথ্য সংগ্রহের কাজ চলছে।

বিভিন্ন সংস্থার সূত্রে জানা যায়, ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগের শীর্ষ পদে থাকা একাধিক নেতার নাম উঠে এসেছে। পার্বত্য জেলা পরিষদ, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডসহ বিভিন্ন সরকারি দফতরে পেশী শক্তির ব্যবহার করে টেন্ডার নিয়ন্ত্রণ, মাদক ব্যবসায় ইন্ধন, চাকরী ও বিভিন্ন খাতে ঘুষ বাণিজ্যে ও অবৈধ ব্যবসায় জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে এসব লোকের বিরুদ্ধে। পার্বত্য চট্টগ্রামের অনিবন্ধিত আঞ্চলিক সংগঠনগুলোর সশস্ত্র ইউনিটগুলোর সাথে আতাঁতের অভিযোগ আছে কারো কারো বিরুদ্ধে। শুধুমাত্র ক্ষমতাসীনরা নয় জাতীয় ও আঞ্চলিক রাজনৈতিক সংগঠনের অনেক নেতাও আছেন এসব তালিকায়। তালিকায় বাদ পড়েনি নামে বেনামে কোটি কোটি টাকা মূল্যের জায়গা-জমি, বাড়ি, গাড়ী ও সম্পত্তি থাকা সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নাম। পাহাড়ী ঠিকাদারদের নামে থাকা লাইসেন্স ব্যবহারকারী ঠিকাদার ও সঠিক তথ্য না দিয়ে ব্যবসা পরিচালনাকারী অসাধু ব্যবসায়ীদের জন্য অশনি সংকেত থাকছে। এছাড়া আওয়ামীলীগের নাম পদবি ব্যবহার করে অনিয়মকারী নেতাকর্মী ও অনুপ্রবেশকারীদের নামের তালিকা হচ্ছে।

খাগড়াছড়ি জেলা শ্রমিকলীগের এক নেতা নাম না প্রকাশের শর্তে বলেন, আওয়ামীলীগ এখন সুবিধাবাদীদের সংগঠনে পরিণত হয়েছে। বিএনপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল থেকে আসা লোকজন টাকার বিনিময়ে পদ নিচ্ছে। পদ পাওয়ার পর করছে টেন্ডারবাজীসহ নানা অপকর্ম। খাগড়াছড়ি আওয়ামীলীগে ত্যাগী নেতাকর্মীদের এখন মূল্যয়ন নেই।

সুশাসনের জন্য নাগরিক(সুজন) খাগড়াছড়ির সম্পাদক এডভোকেট নাসির উদ্দিন আহমেদ বলেন, টানা তিন মেয়াদে সরকার ক্ষমতা থাকায় নেতাকর্মী ও সরকারি চাকরীজীবীদের মাঝে নেতিবাচক প্রভাব দেখা দিয়েছে। সন্ত্রাস, মাদক ও দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ঘোষণা দিয়ে অভিযান করে সরকার যেমন প্রশংসা পাচ্ছে যদি এর ধারাবাহিকতা ধরে না রাখে তাহলে প্রশ্নবিদ্ধ হবে।

২৭ অক্টোবর চট্টগ্রামে বিভাগীয় প্রতিনিধি সম্মেলনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যেও ছিল অপরাধ করে কেউ পার পাবে না। দলে অনুপ্রবেশকারীদের ব্যাপারে শীর্ষ নেতাদের সর্তক করে। সূত্র: খাগড়াছড়ি প্রতিদিন।

পাহাড়ের আলো

https://pahareralo.com

সর্বাধিক জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল। সর্বশেষ সংবাদ সবার আগে জানতে চোখ রাখুন পাহাড়ের আলোতে।

Related post