খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদপাহাড়ের সংবাদশিরোনামস্লাইড নিউজ

খাগড়াছড়িতে ১২ বীর রেজিমেন্টকে পতাকা প্রদান

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: ১২ বীর রেজিমেন্টের কালার প্যারেড অনুষ্ঠান বৃহস্পতিবার (২৬ এপ্রিল) দীঘিনালা সেনানিবাসের রেজিমেন্টের প্রশিক্ষণ মাঠে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে ২৪ পদাতিক চট্রগ্রাম ডিভিশনের জিওসি এবং চট্টগ্রাম এরিয়া কমান্ডার মেজর জেনারেল মো. জাহাঙ্গীর কবির তালুকদার প্রধান অতিথি হিসেবে কুচকাওয়াজ পরিদর্শন ও অভিবাদন গ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে ১২ বীর রেজিমেন্টের পতাকা প্রদান করা হয়েছে। আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানে জিওসি জাহাঙ্গীর কবির তালুকদার ১২ বীর কালারের মান সমুন্নত রাখতে ইউনিটের সব সদস্যকে সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকার এবং সেনাবাহিনীর সেবায় আত্মোৎসর্গ করতে সর্বদা প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দেন। এ ছাড়া তিনি কঠোর প্রশিক্ষণ ও অনুশীলনের মাধ্যমে সময়োপযোগী জ্ঞানার্জন ও পেশাগত দক্ষতা বাড়ানোর ওপর জোর দেন।

এ সময় খাগড়াছড়ি রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুল মোত্তালেব সাজ্জাদ মাহমুদ, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আশ্রাফুল কাদের, ইনফেন্ট্রি ডাইরেক্টর ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এজাজুর রহমান চোধুরী, খাগড়াছড়ি ডিজিএফআই’র অধিনায়ক কর্ণেল মো: মাহবুবুর রহমান সিদ্দিকী, দীঘিনালা জোন কমান্ডার লে: কর্ণেল ফেরদৌস জিয়া উদ্দিন মাহমুদসহ সেনাবাহিনীর উর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ ইউনিটের প্রাক্তন অফিসারবৃন্দ, মাষ্টার ওয়ারেন্ট অফিসারবৃন্দ এবং অন্যান্য পদবীর সেনাসদস্যগণ বর্ণাঢ্য এ কুচকাওয়াজ প্রত্যক্ষ করেন।

রেজিমেন্টাল কালার প্রদান অনুষ্ঠানের প্যারেড কমান্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ১২ বীরের অধিনায়ক লে: কর্ণেল গোলাম আজম। অত্র ইউনিট জাতীয় পর্যায়েসহ জাতিসংঘ মিশন, আন্তর্জাতিক অঙ্গণে অবদান রাখা ও পার্বত্য চট্টগ্রামে সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করছে। দুর্জয়-দূরন্ত-নির্ভীক এই মূলমন্ত্রে দীক্ষিত হয়ে অদম্য মনোবল নিয়ে ১২ বীরের জয়যাত্রা চলমান।
পরে লাইটনিং টুয়েলভ-এর কেক কাটেন মেজর জেনারেল মো. জাহাঙ্গীর কবির তালুকদার। এসময় খাগড়াছড়ির সাবেক সাংসদ ও সাবেক ট্রাস্কফোর্স চেয়ারম্যান যতীন্দ্র লাল ত্রিপুরা, খাগড়াছড়ি পৌরসভার মেয়র মো. রফিকুল আলম, খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ সদস্য মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, ১৯৮৮ সালের জুলাই মাসে ঘাটাইল সেনানিবাসের ৩০৯ পদাতিক ব্রিগেড এর অধিনে শার্দুল পরিবারে এক নতুন সদস্য হিসেবে ৪৭ ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্ট তার যাত্রা শুরু করে। ১৯৮৮ সালের ২১ ডিসেম্বর ৯ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি মেজর জেনারেল মোহাম্মদ নুর উদ্দীন খান আনুষ্ঠানিক ভাবে নবগঠিত এই পদাতিক ব্যাটালিয়নের পতাকা উত্তোলন করেন। পরবর্তীতে তা অত্যন্ত সফলতার সাথে বীরে রুপান্তরিত হয়।