• July 17, 2024

খাগড়াছড়ি বিএনপির প্রধান উপদেষ্ঠা বিথীকে সংবর্ধনা দিলো ত্রিপুরা সম্প্রদায়

 খাগড়াছড়ি বিএনপির প্রধান উপদেষ্ঠা বিথীকে সংবর্ধনা দিলো ত্রিপুরা সম্প্রদায়

স্টাফ রিপোর্টার: খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির প্রধান উপদেষ্ঠা জাকিয়া জিনাথ বিথীসিহ উপদেষ্ঠামন্ডলীর সদস্যদের সংবর্ধনা দিলো ত্রিপুরা সম্প্রদায়।

৩০ সেপ্টেম্বর শনিবার খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির প্রধান উপদেষ্টা জাকিয়া জিনাত বিথী ও অপর দুই উপদেষ্টাকে ত্রিপুরা সম্প্রদায়ের পক্ষ থেকে দেওয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য ওয়াদুদ ভূইয়া। ত্রিপরা সম্প্রদায় ।খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির কার্যালয়ের মিলনাতয়নে অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা সভায় হাজারো ত্রিপুরা সম্প্রদায়ের নারী-পুরুষ উপস্থিত ছিলেন। সংবর্ধিত অপর দুইজন উপদেষ্টা হলেন, আবু তৈয়ব কোম্পানী ও মাসুদ রানা।

খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য ওয়াদুদ ভূইয়া বলেছেন, বিএনপি পাহাড়ি-বাঙালিসহ সকল সম্প্রদায়ের নিরাপদ ঠিকানা। এ কারণে পাহাড়ি, হিন্দু ও বড়ুয়া সম্প্রদায়ের মানুষ দলে দলে বিএনপির পতাকা তলে সমতে হচ্ছে। তিনি অভিযোগ করে বলেন, পাহাড়ি নেতারা কখনো পাহাড়ি জনগোষ্ঠীর উপকার করেনি। নেতারা শুধু নিজেদেরে পকেট ভারী করতে ব্যস্ত। ওয়াদুদ ভূইয়া আরও বলেন, আওয়ামী লীগের ভ্রান্তনীতির কারনে পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তি বাহিনীর জন্ম হয়েছিল। এ শান্তি বাহিনীর হাতে ৩০ হাজার নিরীহ পাহাড়ি-বাঙালি খুন হয়েছে। এখন পাহাড়ে শান্তি বাহিনীর আদলে আরো চারটি সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর জন্ম হয়েছে। পার্বত্য চট্টগ্রামে সবগুলো সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর জন্ম হয়েছে আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে। এ সব সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর চাঁদাবাজি ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের পার্বত্য চট্টগ্রামে কোন সম্প্রদায়ের মানুষ নিরাপদে নেই। সন্ত্রাসীরা শুধু নিরীহ পাহাড়ি-বাঙালিকে হত্যা করছে না, তাদের হাতে পার্বত্য চট্টগ্রামে নিরাপত্তায় নিয়োজিত আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরাও প্রাণ হারাচ্ছে।

ওয়াদুদ ভূইয়া বলেন, আওয়ামী লীগের শাসনামলে এ দেশে রামুসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে হিন্দ ও পাহাড়ি সম্প্রদায়ের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে হামলা হয়েছে। পাহাড়ি ও হিন্দু সম্প্রদায়ের সম্পত্তি দখল হয়েছে আওয়ামী লীগ সরকারের শাসনামলে।

বিশিষ্ট উপজাতীয় নেতা ক্ষেত্র মোহন রোয়াজার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তব্যে রাখেন, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এম এন আবছার, সহ-সভাপতি প্রবীন চন্দ্র চাকমা, মনীন্দ্র কিশোর ত্রিপুরা, যুগ্ম সম্পাদক যুগ্ম সম্পাদক এড. মালেক মিন্টু, মোশাররফ হোসেন,অনিমেষ চাকমা রিংকু, সাংগঠনিক সম্পাদক ক্ষনি রঞ্জন ত্রিপুরা,জেলা যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক কমল বিকাশ ত্রিপুরা।

মানবাধিকার সম্পাদক ললিত বিকাশ ত্রিপুরা, গণ-শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক নারায়ণ ত্রিপুরা, সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট শুভ্র দেব ত্রিপুরা, সদস্য কিশোর ত্রিপুরা, জেলা মহিলা দলের সহ-সভাপতি মিঠুন রানী ত্রিপুরা, সদর উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি কল্প রঞ্জন ত্রিপুরা, দিঘীনালা উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি অনিল জ্যোতি ত্রিপুরা, পানছড়ি উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি রিপন ত্রিপুরা (দিপন), রামগড় উপজেলা বিএনপি নেতা সুরেন্দ্র ত্রিপুরা।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি কংচাইরী মারমা, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রব রাজা, আবু তালেব, কোষাধ্যক্ষ মফিজুর রহমান,ক্ষুদ্র ঋণ ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক মোহাম্মদ হোসেন বাবু, সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসেম, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি শাহেদুল হোসেন সুমন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক আবদুল্লাহ আল নোমান সাগর, সদস্য সচিব হৃদয় নুর।

পাহাড়ের আলো

https://pahareralo.com

সর্বাধিক জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল। সর্বশেষ সংবাদ সবার আগে জানতে চোখ রাখুন পাহাড়ের আলোতে।

Related post