খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদপাহাড়ের সংবাদশিরোনামস্লাইড নিউজ

শহরের গঞ্জপাড়া বৃষ্টির পানিতে ডুবেছে মসজিদ, বসতঘর: নামাজ পড়তে পারেনি মুসল্লীরা

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: রাতভর টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে খাগড়াছড়ি জেলার বিভিন্ন উপজেলার বিভিন্ন এলাকার নিন্মাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। মানুষের ঘর, বাড়ি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে পানি উঠেছে। পানি না নামায় খাগড়াছড়ি শহরের গঞ্জপাড়া এলাকার আল-আকসা মসজিদে ফজর, জোহরের নামাজ পড়তে পারেননি ধর্মপ্রাণ মুসলিমেরা।

সরেজমিন ঘুরে এবং আল আকসা মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা মাঈনুদ্দিন জানান, গতকাল রাত হতে টানা বর্ষনে মসজিদে পানি উঠে যায়। ফলে ফজর ও জোহরের নামাজ আদায় করতে পারেননি ধর্মপ্রাণ লোকজন। মসজিদের পাশে ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয় উল্লেখ করে তিনি আরো জানান স্থানীয় জন প্রতিনিধিগণকে এই বিষয়ে বারবার বলা হয়েছে কোন সুফল আসেনি। গত বছর বেশ কয়েকদিন এভাবেই মসজিদে জামাত হয়নি । দ্রুত পানি নিস্কাশন হলেই এখানকার মানুষের দুর্ভোগ কমতো বলে তিনি মনে করেন।

গঞ্জপাড়া এলাকার বাসিন্দা ও মেম্বার সৈয়দ আলী বলেন গোলাবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদ হতে ড্রেন করে দেবার প্রতিশ্রুততি দিলেও এখন পর্যন্ত বরাদ্ধের অভাবে তা করে দিতে পারিনি। তবে চলতি বছর আল-আকসা মসজিদকে জলাবদ্ধতার হাত থেকে রক্ষার জন্য জোরালো পদক্ষেপ নেওয়া হবে। গোলাবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জ্ঞান জ্যোতি ত্রিপুরাও আল-আকসা মসজিদের জলাবদ্ধতা দুর করার জন্য সকল করনীয় সম্পাদনে অঙ্গীকারাবদ্ধ উল্লেখ করেন।

এদিকে টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে খাগড়াছড়ি জেলা শহরের আশে-পাশে কমপক্ষে ১৫টি এবং পুরো জেলায় প্রায় ৫০টি গ্রামে পানি উঠেছে। অনেক স্থানে ঘর-বাড়ির ভেতরেও উঠেছে পানি। পানিবন্ধী হয়ে পড়েছে হাজারো মানুষ।

খাগড়াছড়ি শহরের এপিবিএন মুসলিম পাড়া এলাকার রবিউল ইসলাম, রূপনগর এলাকার সজল দাশ, রাজ্যমনি পাড়া এলাকার নেই¤্রা মারমা, সাবেক কাউন্সিলর মাসুদুল হক বলেন ঘুম থেকে উঠেই ঘরে পানি দেখে হতভম্ব তারা। গতকাল রাত ১২ঘটিকা হতে টানা হওয়া বৃষ্টির কারণে ঘরের অনেক সম্পদের ক্ষতি হয়েছে এবং গবাদিপশুর ঘরে পানি উঠায় বিপাকে পড়েছেন তারা।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মুক্তা চাকমা বলেন গতকাল রাত হতে এই পর্যন্ত প্রায় ৫৭ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টির কারনে কৃষি জমির কিছু সবজী ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। তবে কি পরিমান ক্ষতি হয়েছে-তা নিশ্চিত করতে পারেননি এই কর্মকর্তা।

খাগড়াছড়ি পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্মলেন্দু চৌধুরী প্রচুর বৃষ্টিপাত হওয়ায় এবং পাহাড়ি ঢলে জেলার বিভিন্ন নিন্মাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। পৌরসভার আওতাধীন কয়েকটি জায়গায় রাস্তার উপরে পাহাড় ধসে পড়েছে, যা পৌরসভার লোকজন সরাচ্ছে। পাহাড় ধসের ঝুঁকিতে থাকা লোকজনকে নিরাপদ স্থানে আনার কাজ চলছে। তবে বৃষ্টি কয়েক ঘন্টা বন্ধ থাকলে পানি নেমে যাবে বলে মনে করেন তিনি।