• May 24, 2024

গণ সংবর্ধনায় সিক্ত হলেন বিশ্বখ্যাত খাগড়াছড়ির তিন ফুটবল কন্যা

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে নারীরা এগিয়ে যাচ্ছে মন্তব্য করে খাগড়াছড়ির বিভিন্ন অর্জনের কথা উল্লেখ করে পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের সচিব কবির বিন আনোয়ার বলেছেন, পাহাড়ের এ তিন কন্যা খাগড়াছড়িকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন।

এই তিন কণ্যা প্রাচুর্য্যময় বাংলাদেশের সম্পদ। খাগড়াছড়িতে নিয়মিত ক্যাম্প করলে তিন কণ্যার মতো আরো অনেক মেয়ে ফুটবলে যোগ্যতার স্বাক্ষর রাখবে। পাহাড়ের তিন ফুটবল কন্যা ম্যাজিকেল মনিকা চাকমা, আনুচিং মগিনী ও আনাই মগিনীর গণ-সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরীর সভাপতিত্বে খাগড়াছড়ি অফিসার্স ক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, সাবেক লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব রোকন উদ-দৌলা।

এতে বক্তব্য রাখেন, খাগড়াছড়ির রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. হামিদুল হক, খাগড়াছড়ির জেলা প্রশাসক মো. শহিদুল ইসলাম, ডিজিএফআই’র কমান্ডার কর্ণেল নাজিম উদ্দিন, খাগড়াছড়ির পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আহমার উজ্জামান, খাগড়াছড়ি পৌরসভার মেয়র মো. রফিকুল আলম ও খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শানে আলম প্রমুখ।

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ ও খাগড়াছড়ি জেলা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে বর্নিল এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন খাগড়াছড়ি জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারন সম্পাদক ও খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য জুয়েল চাকমা।

অনুষ্ঠানের শুরুতে ম্যাজিকেল মনিকা চাকমা ও আনুচিং মগিনী নিজেদের অনুভূতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ, খাগড়াছড়ি জেলা ক্রীড়া সংস্থা, খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশ, খাগড়াছড়ি পৌরসভা, বাংলাদেশ ত্রিপুরা কল্যান সংসদ সহ জেলার বিভিন্ন সংস্থা পক্ষ থেকে তিন ফুটবল কন্যার হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেয়। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সাংবাদিক আজহার হিরা।

উল্লেখ্য দেশ সেরা খাগড়াছড়ির তিন কৃতী ফুটবলার মনিকা-আনাই ও আনুচিং বয়স ভিত্তিক জাতীয় মহিলা ফুটবল দলের নক্ষত্র খাগড়াছড়ির তিন কন্যা। সর্বশেষ বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব ১৯ আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে মঙ্গোলিয়ার বিপক্ষে গোল করে ফিফা’র ম্যাজিকেল গোলদাতার সেরা দশের পঞ্চম স্থান অর্জন করেন মনিকা চাকমা। নাম দেয়া হয় ম্যাজিক্যাল চাকমা। দেশ ছাড়িয়ে বিদেশের মাটিতে ফুটবলে আলোচিত এই মনিকা চাকমার নিজ বাড়ি লক্ষ্মীছড়ির মরাচেঙ্গী এলাকায়। সংবর্ধনা সভায় তার মা-বাবাও উপস্থিত ছিলেন। মনিবা চাকমার খেলার শুরুটা হয়েছিল ২০১১সালে বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্ট দিয়ে।

পাহাড়ের আলো

https://pahareralo.com

সর্বাধিক জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল। সর্বশেষ সংবাদ সবার আগে জানতে চোখ রাখুন পাহাড়ের আলোতে।

Related post