মূর্তি ভাংচুরের প্রতিবাদে মহালছড়িতে মানববন্ধন

মহালছড়ি প্রতিনিধি: গুইমারা উপজেলার কুকিছড়া জেতবন বিহারে বুদ্ধ মূর্তি ভাংচুরের ঘটনার প্রতিবাদে খাগড়াছড়ির মহালছড়িতে মানব বন্ধন করেছে পার্বত্য ভিক্ষু সংঘ

পানছড়িতে প্রতিবন্ধী শিশুকে বলৎকারের অভিযোগ
এবার মানিকছড়িতে চালু হলো সেনাবাহিনীর এক মিনিটের বাজার
রামগড়ে অসহায় ভিক্ষুকদের এককালীন নগদ অর্থ বিতরণ

মহালছড়ি প্রতিনিধি: গুইমারা উপজেলার কুকিছড়া জেতবন বিহারে বুদ্ধ মূর্তি ভাংচুরের ঘটনার প্রতিবাদে খাগড়াছড়ির মহালছড়িতে মানব বন্ধন করেছে পার্বত্য ভিক্ষু সংঘ।

২৪ অক্টোবর বিকাল ৪ টায় উপজেলার কয়েকটি বিহারের বিহারাধ্যক্ষ ও এলাকার দায়িকা-দায়িকাদের অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে মহালছড়ি উপজেলা বটতল প্রাঙ্গণে এ মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। আধা ঘন্টা ব্যাপী এ মানব বন্ধনে পার্বত্য ভিক্ষু সংঘের সভাপতি ভদন্ত সুমনা মহাথের এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, লেমুছড়ি বিহারের বিহারাধ্যক্ষ ভদন্ত ওয়েনা থের, মুবাছড়ি গোতম বৌদ্ধ বিহারের বিহারাধ্যক্ষ প্রজ্ঞা জ্যোতি স্থবির ও থৈইলাপ্রু মারমা প্রমূখ।

এ সময় বক্তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, পবিত্র প্রবারণা পূর্ণিমা তিথিতে ইচ্ছে করেই প্রব্রজ্যাধারীরা রাস্তায় নামেনি। এ সময়ে বিহারে থেকে ধর্মীয় অনুষ্ঠানাদি নিয়ে ব্যস্ত থাকার কথা। কিন্তু এ ধরণের ঘটনায় রাস্তায় নামতে বাধ্য হয়েছে।

তারা আরো বলেন, সভ্যজগতে বুদ্ধমূর্তি ভাংচুরের মতো ঘটনা কোন ভাবেই মেনে নেওয়া যায়না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে অতিসত্বর ভাংচুরের ঘটনায় যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করে যথাপোযুক্ত ক্ষতিপূরণের দাবী জানান।

উল্লেখ্য, গত ২২ অক্টোবর গুইমারা উপজেলার কুকিছড়া গ্রামের জেতবন বৌদ্ধ বিহারে দিবাগত রাতে বুদ্ধ মূর্তি ভাংচুর করা হয়। স্থানীয়রা ভাংচুরের ঘটনায় সরাসরি সেনাবাহিনীদের দায়ী করেছেন। এ অভিযোগ সেনাবাহিনীরা অস্বীকার করেছেন। বুদ্ধমূর্তি ভাংচুরের ঘটনায় কোন ভাবেই জড়িত নয় বলে জানান এবং সেনাবাহিনীর ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার একটি গভীর ষড়যন্ত্র বলে দাবী করা হয়।