গুইমারায় হ্যান্ডক্যাপসহ মারমা যুবক পালিয়েছে

 স্টাফ রিপোর্টার:  গুইমারায় পুলিশের হাতে আটক এক মারমা যুবক হ্যান্ডক্যাপসহ পালিয়েছে বলন জানা গেছ। শনিবার রাতে উপজেলার রামচু বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। জা

এক দশকে হারিয়েছে খাগড়াছড়িতে শতাধিক পাহাড়
গুইমারাতে বঙ্গবন্ধু’র ভাষণ প্রদর্শন, র‌্যালি আলোচনা সভা
লক্ষ্মীছড়িতে সেনাবাহিনী কর্তৃক সাংস্কৃতিক মেলা ও দুস্থ্যদের মাঝে অনুদান বিতরণ

 স্টাফ রিপোর্টার:  গুইমারায় পুলিশের হাতে আটক এক মারমা যুবক হ্যান্ডক্যাপসহ পালিয়েছে বলন জানা গেছ। শনিবার রাতে উপজেলার রামচু বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, গুইমারা থানার এএসআই মো. ফারুকের নেতৃত্বে চার সদস্যের পুলিশের একটি দল শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে রামচু বাজার এলাকায় অভিযানে যান। জুয়া খেলায় জড়িত থাকার সন্দেহে সাদা পোশাকে পুলিশের এ দলটি ক্যাউজপ্রু মারমা (২৫) নামে এক যুবককে আটক করে। এতে গ্রামবাসীরা পুলিশের ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেন এক পর্যায়ে ক্যাউজপ্রু মারমা হ্যান্ডক্যাপসহ পুলিশের হাত থেকে পালিয়ে যান। পরে পুলিশ তার বড় ভাই পাইও মারমাকে (৪০) আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

স্থানীয় এক গ্রামবাসী জানান, ইনিফর্ম না থাকায় সাদা পোশাকের পুলিশকে প্রথমে লোকজন দুষ্কৃতিকারী ভেবে ঘেরাও করে ফেলে। পরে তারা নিজেদের ডিবি পুলিশ পরিচয় দিলে গ্রামবাসী শান্ত হন। পুলিশের হাত থেকে পালিয়ে যাওয়া ক্যাউজপ্রু মারমা পেশায় যাত্রীবাহী মোটরসাইকেল চালক। তিনি গুইমারার বটতলী ডিবি পাড়ার বাংলা মারমার ছেলে।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে হাফছড়ি ইউপির মহিলা মেম্বার হ্লামাপ্রু মারমা বলেন, তিনি হ্যান্ডক্যাপটি উদ্ধার করে ইউপি চেয়ারম্যানের মাধ্যমে থানায় হস্তান্তর করেছেন। মহিলা সদস্য আরও বলেন, পুলিশের হাত থেকে পালানো ক্যাউজপ্রুর বড় ভাইকে ছেড়ে দিতে তারা থানার ওসিকে অনুরোধ করেছেন।

গুইমারা উপজেলা চেয়ারম্যান উশ্যেপ্রু মারমা সাংবাদিকদের জানান, তিনিও ঘটনাটি শুনেছেন। ওসি মো. গিয়াস উদ্দিন হ্যান্ডক্যাপ নিয়ে আটক যুবকের পালানোর কথা অস্বীকার করেছেন। তবে তিনি পালিয়ে যাওয়া ক্যাউজপ্রুর বড় ভাইকে আটকের কথা স্বীকার করেন।