চন্দ্রঘোনায় অনৈতিক কাজে জড়িত থাকার অভিযোগে আটক ৩

রাঙ্গুনিয়া প্রতিনিধি: রাঙ্গুনিয়ার চন্দ্রঘোনা লিচুবাগান বাসষ্ঠেশনে ইউনুছ বোডিংয়ে গত রোববার রাতে অসামাজিক কার্যকলাপে জড়িত থাকার অভিযোগে তিন মহিলাকে আটক

ফটিকছড়িতে ৩ চোর আটক, চুরির মালামাল সরঞ্জামসহ ট্রাক জব্দ
রাঙ্গুনিয়ায় দূর্যোগ প্রস্তুতি দিবস উপলক্ষে শোভাযাত্রা
রাঙ্গুনিয়ায় বাল্যবিয়ে বন্ধ হওয়া সেই নাজমা পেলো জিপিএ-৫

রাঙ্গুনিয়া প্রতিনিধি: রাঙ্গুনিয়ার চন্দ্রঘোনা লিচুবাগান বাসষ্ঠেশনে ইউনুছ বোডিংয়ে গত রোববার রাতে অসামাজিক কার্যকলাপে জড়িত থাকার অভিযোগে তিন মহিলাকে আটক করেছে স্থানীয় জনতা। ইউনুছ বোডিংয়ে জনৈক ইউনুছ পতিতা ব্যবসা করানোর উদ্যোশে তাদের জড়ে করে বলে ধৃত মহিলারা স্বীকার করে।

জানা যায়, উপজেলার চন্দ্রঘোনা লিচুবাগানের ইউনুছ বোডিংয়ে পতিতাদের দিয়ে অসামাজিক কার্যকলাপ হচ্ছে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তৌহিদি জনতা ও এলাকাবাসীর সহযোগীতায় রাত ৮টায় অভিযান চালায়। এসময় অসামাজিক কার্যকলাপে জড়িত তিন পতিতাকে হাতনাতে ধরে উত্তমমধ্যম দেয় উত্তেজিত জনতা। শতশত জনতা জড়ো হয়ে বোডিং মালিক ও তার গডফাদারদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তির দাবীতে মিছিল দেয়। মুহুর্তে বিক্ষোভে ফেঁটে পড়ে তৌহিদি জনতা। চন্দ্রঘোনা ইউপি চেয়ারম্যান ইদ্রিছ আজগর ও লিচুবাগান ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দের হস্তক্ষেপে রাঙ্গুনিয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তিন পতিতাকে আটক করে থানা হেফাজতে নিয়ে যায়।

উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন, দীর্ঘদিন ধরে চন্দ্রঘোনার দোভাষীবাজার ও লিচুবাগান বোডিংয়ে প্রভাবশালী চক্র অবৈধ ভাবে অসামাজিক কার্যকলাপ চালিয়ে আসছে। রাঙ্গুনিয়ার সাংসদ, তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের নির্দেশে আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও শতশত স্থানীয় তৌহিদি জনতা ইউনুছ বোডিংয়ে অভিযান চালিয়ে তিন পতিতাকে অসামাজিক কার্যকলাপ করা অবস্থায় হাতেনাতে ধরে পুলিশে সোপদ্দ করা হয়। উপজেলা যুবলীগ নেতা মো. হাছান বলেন, আধুনিক রাঙ্গুনিয়ার রূপকার, তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপির নেতৃত্বে আমরা চন্দ্রঘোনাবাসী এক্যবদ্ধ হয়ে সকল অপরাধের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

স্থানীয় একটি সূত্র জানায়, চন্দ্রঘোনায় অসামাজিক কার্যকলাপ সহ বিভিন্ন অপরাধে জড়িত স্পট থেকে প্রশাসনের নামভাঙ্গিয়ে কতিথ এক চৌকিদার মোটাঅংকের মাসোহারা উত্তোলন করছে। প্রশাসেনর যে কোন অভিযানের পূর্বে জনৈক চৌকিদারের মাধ্যমে অপরাধীরা অগ্রিম খবর পেয়ে যাচ্ছে। যার ফলে বিভিন্ন অপরাধের আসামী ও মাদক পাচারের মুল গডফাদাররা সবসময় ধরাছোঁয়ার বাইরে থেকে যাচ্ছে।