খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদদীঘিনালাপাহাড়ের সংবাদশিরোনামস্লাইড নিউজ

দীঘিনালায় ঈদ উপলক্ষে সেনাবাহিনীর খাদ্য ও বস্ত্র বিতরণ

 ১মে রোববার দীঘিনালা উপজেলার মেরুং ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের বেতছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে খাগড়াছড়ি রিজিয়ন এবং সেনা পরিবার কল্যাণ সংস্থা’র যৌথ উদ্যোগে অসহায় ও হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী, এতিম ও অসহায় শিশুদের মাঝে নতুন পোষাক বিতরণ করা হয়।

ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ি রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, বিএসপি, এনডিসি, পিএসসি এবং খাগড়াছড়ি রিজিয়নের সেপকস’র সহ-সভানেত্রী রাবেয়া জাহাঙ্গীর।

ত্রাণ সামগ্রী ও এতিম শিশুদের মাঝে নতুন পোষাক বিতরণকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রিজিয়ন কমান্ডার বলেন, ‘খাগড়াছড়ি রিজিয়ন পাহাড়ী- বাঙ্গালী নির্বিশেষে সব সময় পার্বত্য অঞ্চলের যেকোন ধরনের সাহায্য সহযোগিতার কাজে এগিয়ে এসেছে। এই সহযোগিতা ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।

এসময় তিনি আরও বলেন, ‘আমরা সবসময় চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কঠোরতার সাথে কাজ করি। এদেশে সন্ত্রাসী এবং চাঁদাবাজদের কোন স্থান নেই। আমরা এ পার্বত্য অঞ্চলের সকল সম্প্রদায়ের মানুষের সাথে ছিলাম, আছি এবং থাকবো। ধর্ম যার যার‘ উৎসব সবার। আমরা এই ঈদেও সকলের সাথে আনন্দ এবং উৎসব ভাগাভাগি করে কাটিয়ে দিতে চাই। ধর্ম, বর্ণ, জাতি ও নির্বিশেষে সব সময় ভালো কাজের মাধ্যমে পাশে থাকবো। আমরা সবসময় মানুষের কল্যাণের জন্য কাজ করে আসছি। ভবিষ্যতেও এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে’।

এসময় সহযোগীতা পেয়ে বেতছড়ি পশ্চিম পাড়া এলাকার হাজেরা খাতুন (৭০) বলেন, সেনাবাহিনী আমাদের পাশে সব সময় ছিলো। ইদকে সামনে রেখে ইদের বাজার উপহার পাওয়ায় আমার অনেক উপকার হয়েছে। আমি পরিবার নিয়ে আনন্দে ইদ করতে পাড়বো। এসময় সেনাবাহিনী জানায়, ‘দীঘিনালায় ইদকে সামনে রেখে বিভিন্ন এলাকায় প্রায় ১ হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দেওয়া। তার মধ্যে আজকে বেতছড়ি স্কুলে ৬ শত পরিবারকে খাদ্য সহায়তা, ছোটদের ইদ উৎযাপনের জন্য নতুন পোশাক ও নগত অর্থ প্রদান করা হয়েছে’।

এছাড়াও এসময় উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ি রিজিয়নের স্টাফ অফিসার (জিটুআই) মেজর মো. জাহিদ হাসান, দীঘিনালা জোনের জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল চৌধুরী মোহাম্মদ ফাহিম আশরাফী, পিএসসি ও জোন অধিনায়কের সসহধর্মিণী মিসেস রেহনুমা মুনজুর প্রমুখ। এছাড়াও সাংবাদিক ও স্থানীয় সুধিজন উপস্থিত ছিলেন।