ইউপি নির্বাচনখাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদপানছড়িপাহাড়ের সংবাদশিরোনামস্লাইড নিউজ

পানছড়ির ইউপি নির্বাচন: স্বতন্ত্র ৩ নৌকার জয় ১, স্থগিত ১

পানছড়ি প্রতিনিধি: জেলার পানছড়ি উপজেলার ৫টি ইউপির মধ্যে ৪টির বে-সরকারীভাবে ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে। ৭ম ধাপের এই নির্বাচনে ৩টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী জয়লাভ করেছে। ১টিতে নৌকা এবং আর ১টির ফলাফল স্থগিত রয়েছে। ৭ফেব্রুয়ারী সকাল ৮টা থেকে উপজেলার লোগাং, চেঙ্গী, লতিবান ও উল্টাছড়ি ইউনিয়নে সুষ্ঠ ও সুন্দরভাবে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়। ৩নং পানছড়ি ইউপি পাইলট ফার্ম ও বাজার উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র দুটিতে ব্যালট ছিনতাইয়ের অভিযোগে ভোট গ্রহণ স্থগিত করা হয়।

পানছড়ি উপজেলা নির্বাচনী ফলাফল কন্ট্রোল রুম সূত্রে জানা যায়, ১নং লোগাং ইউপিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী জয় কুমার চাকমা অটোরিক্সা প্রতীক নিয়ে ৩হাজার ৯০২ ভোট পেয়ে বে-সরকারীভাবে নির্বাচিত হয়। নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী স্বতন্ত্র প্রার্থী সমর বিকাশ চাকমা পেয়েছেন ২হাজার ৮০৪ ভোট। ২নং চেংগী ইউপিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী আনন্দ জয় চাকমা মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে ১হাজার ৪৬০ ভোট পেয়ে বে-সরকারীভাবে নির্বাচিত হয়। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী স্বতন্ত্র প্রার্থী নিহার বিন্দু চাকমা পায় ১হাজার ২৮০ ভোট। ৪নং লতিবান ইউপিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী ভুমিধর রোয়াজা চশমা প্রতীক নিয়ে ২হাজার ৭১২ভোট পেয়ে বে-সরকারীভাবে নির্বাচিত হয়। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী স্বতন্ত্র প্রার্থী সত্য প্রিয় চাকমা পায় ২হাজার ৬৭৩ ভোট। ৫নং উল্টাছড়ি ইউপির মো: আহির উদ্দিন নৌকা প্রতীক নিয়ে ৪হাজার ৩০২ভোট পেয়ে বে-সরকারীভাবে নির্বাচিত হয়। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী বিজয় চাকমা আনারস প্রতীক নিয়ে পায় ৩হাজার ৭৫৯ ভোট। ৩নং পানছড়ি ইউপির ১০টি কেন্দ্রের মাঝে ৮টির ভোটগ্রহণ শেষে আনারস প্রতীক নিয়ে উচিত মনি চাকমা ৫হাজার ৬৪৩ ভোট পেয়ে এগিয়ে আছেন এবং নৌকা প্রতীক নিয়ে মো: নাজির হোসেন ৪হাজার ৪১৯ ভোট পেয়েছেন। স্থগিত কেন্দ্র দুটিতে ভোটার রয়েছে ৪হাজার ৬২৮ ভোট।

এদিকে ব্যালট ছিনতাই, গাড়ি ভাংচুর, ২টি কেন্দ্র স্থগিত সহ বিচ্ছিন্ন ঘটনার মধ্যদিয়ে খাগড়াছড়ির পানছড়ি উপজেলার ৫টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। একই সাথে ভােট কেন্দ্রের স্থান পরিবর্তনের দাবীতে মানবন্ধন ও সড়ক অবরোধ পালন করেছে স্থানীয়রা। বেলা ১২টার দিকে সদর ইউপির ৮নং কেন্দ্র পাইলট ফার্ম ভোট কেন্দ্রে ব্যালট ও সিল ছিনতাই করে দুর্বিত্তরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে নিতে পুলিশ, বিজিবি, র‌্যাব সহ যৌথ বাহিনীর সদস্যরা লাঠি চার্জ করে। এসময় মেম্বার প্রার্থী বাবুল বড়ুয়ার সমর্থকরা পানছড়ি টার্মিনালে থাকা বেশকিছু গাড়ি ভাংচুর করে। পরে পাইলট ফার্ম কেন্দ্রটির ভোট গ্রহন স্থগিত করে প্রিজাইডিং অফিসার। এঘটনায় ২জনকে আটক করা হয়েছে। এ ছাড়াও জাল ভোটের অভিযোগে পানছড়ি বাজার মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোট গ্রহন স্থগিত করা হয়।

অন্যদিকে ব্যালট ছিনতাই ও প্রার্থীদের মারধরের অভিযোগ তুলে কেন্দ্র বাতিলের দাবিতে সদর ইউপির ৮ নং ওয়ার্ডের এলাকাবাসী সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন।