“পানির জন্য প্রকৃতি” প্রতিবাদ্যে গুইমারাতে বিশ্ব পানি দিবস পালিত

স্টাফ রিপোর্টার: সারা দেশের ন্যায় নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে খাগড়াছড়ি’র গুইমারাতে পালিত পালিত হয়েছে বিশ্ব পানি দিবস। দিবসটির এবারের প্রতিবাদ্য “পানির জন্

মহালছড়ি জোনে মহান স্বাধীনতা দিবসে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানে প্রীতিভোজ
খাগড়াছড়ি ক্যান্টমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজে ‘সততা স্টোর’ উদ্বোধন
মানিকছড়িতে গম-ভুট্ট চাষি প্রশিক্ষণ ও বীজ বিতরণ

স্টাফ রিপোর্টার: সারা দেশের ন্যায় নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে খাগড়াছড়ি’র গুইমারাতে পালিত পালিত হয়েছে বিশ্ব পানি দিবস। দিবসটির এবারের প্রতিবাদ্য “পানির জন্য প্রকৃতি”। দিবসটি উপলক্ষে ২৭মার্চ মঙ্গলবার বেলা ১১টায় গুইমারা উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পঙ্কজ বড়–য়ার নেতৃত্বে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়। উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণ থেকে শুরু হয়ে র‌্যালীটি উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে আবার উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এসে শেষ হয়।

পরে বিশ্ব পানি দিবস উপলক্ষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পঙ্কজ বড়ুয়ার সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় গুইমারা উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা সুদৃষ্টি চাকমা, এলজিইডি প্রকৌশলী মোঃ শাহজাহান, গুইমারা মাদ্রাসার সুপার জায়নুল আবদীন অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পঙ্কজ বড়–য়া নিরাপদ পানির সংকট নিরসনে প্রাকৃতিক পানির সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার উপর গুরুত্ব দিয়ে বলেন, ‘পানিই পৃথিবীকে বাসযোগ্য করেছে, বাঁচিয়ে রেখেছে। পানি ছাড়া প্রকৃতি, জীবন ও সভ্যতা অচল।

পানি দিবসের আলোচনায় বক্তারা জানান ‘দেশের পানি সম্পদের উন্নয়ন ও সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার জন্য উন্নত প্রযুক্তি উদ্ভাবন ও ব্যবহার করতে হবে। দেশের জনগণকে পানি ব্যবহার ও পানি দুষনের এব্যাপারে সচেতন করে তুলতে হবে।

উল্লেখ্য, ১৯৯৩ সালে জাতিসংঘ সাধারণ সভা ২২ মার্চ তারিখটিকে বিশ্ব জল দিবস বা বিশ্ব পানি দিবস হিসেবে ঘোষণা করে। এ বিষয়ে ১৯৯২ সালে ব্রাজিলের রিও ডি জেনিরোতে জাতিসংঘ পরিবেশ ও উন্নয়ন সম্মেলনের (ইউএনসিইডি) এজেন্ডা ২১-এ প্রথম বিশ্ব জল দিবস পালনের আনুষ্ঠানিক প্রস্তাবটি উত্থাপিত হয়। ১৯৯৩ সালে প্রথম বিশ্ব জল দিবস পালিত হয় এবং তার পর থেকে এই দিবস পালনের গুরুত্ব ক্রমশ বৃদ্ধি পেতে থাকে।