প্র্যাকটিসে আসেননি নেইমার : ফিটনেস নিয়ে শঙ্কা

ক্রীড়া ডেস্ক রিপোর্ট: আবারও তার ফিটনেস নিয়ে শঙ্কা জেগেছে ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার নেইমারের। সোমবার ব্রাজিলের ম্যাচ পরবর্তী প্রথম অনুশীলনে ছিলেন না তি

মাটিরাঙ্গায় বঙ্গবন্ধু ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল
খাগড়াছড়ি মহিলা ফুটবল দলকে জার্সি ও নগদ সহায়তা প্রদান
খাগড়াছড়ির বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে দর্শনার্থীদের উপচেপড়া ভীড়

ক্রীড়া ডেস্ক রিপোর্ট: আবারও তার ফিটনেস নিয়ে শঙ্কা জেগেছে ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার নেইমারের। সোমবার ব্রাজিলের ম্যাচ পরবর্তী প্রথম অনুশীলনে ছিলেন না তিনি। আর এতেই প্রশ্ন উঠেছে নেইমার কি পরবর্তী ম্যাচের জন্য ফিট? সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে ১-১ গোলে ড্র করেছে ব্রাজিল। ওই ম্যাচে বেশ কয়েকবার ফাউলের শিকার হয়েছেন নেইমার।

গতকাল নেইমারকে অনুশীলনে না দেখে প্রশ্ন জাগে তার ফিটনেস নিয়ে। তবে ব্রাজিলের ফুটবল ফেডারেশন জানিয়েছে, এদিন নেইমার, পাওলিনহো ও থিয়াগো সিলভা পুরো অনুশীলনে অংশ নেয়নি। তবে তারা এদিন জিমে ও ফিজিওথেরাপিস্টের সাথে সময় কাটিয়েছেন। দলের সবচেয়ে বড় তারকার শারীরিক অবস্থা নিয়ে আশ্বস্ত করেছেন ব্রাজিল দলের চিকিৎসক রদ্রিগো লাসমারও। তিনি বলেন, ম্যাচের পর এগুলো স্বাভাবিক কাজ। এ নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই। আর কুতিনহো সাংবাদিকদের বলেছেন, সুইজারল্যান্ড নেইমারকে অনেক ফাউল করেছে। তবে সে সুস্থ্ আছে।

আর নেইমার ইনস্টাগ্রামে একটি ছবি পোস্ট করেছেন নেইমার, যাতে দেখা যাচ্ছে তার পায়ের শুশ্রূষা চলছে। ক্যাপশন লিখেছেন, ‘কঠোর পরিশ্রম চলছে’।

২৬ বছর বয়সী এই তারকা ফরোয়ার্ডকে রবিবারের ম্যাচে মোট ১০ বার ফাউল করা হয়েছে বলে পরিসংখ্যানে নিশ্চিত করা হয়েছে। ১৯৯৮ সালের পরে কোন খেলোয়াড়ের বিপক্ষে এতবার ফাউলের রেকর্ড নেই। মূলত বিশ্বের সবচয়ে দামী ফুটবলারকে আটকানোর সব ধরনের পন্থাই অবলম্বন করেছিলেন সুইসরা।

আগামী শুক্রবার নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে কোস্টারিকার মুখোমুখী হবে ব্রাজিল। প্রথম ম্যাচ ড্র করা ব্রাজিলের এই ম্যাচে জিততেই হবে টুর্নামেন্টে টিকে থাকার জন্য।

গত ফেব্রুয়ারিতে পায়ের আঘাতের কারণে রোববারই প্রথম কোন প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক ম্যাচ খেলতে মাঠে নেমেছিলেন নেইমার। পায়ে অস্ত্রোপচারের কারণে প্যারিস সেইন্ট-জার্মেইর হয়ে লিগ ওয়ানের শিরোপা জয়ী ম্যাচেও তিনি খেলতে পারেননি।

বড় পরিবর্তন আসছে আর্জেন্টিনা দলে!
আইসল্যান্ডের বিরুদ্ধে জয় বঞ্চিত হওয়ার পর পরবর্তী ম্যাচ নিয়ে বেশ গুরুত্বের সাথে ভাবছেন আর্জেন্টিনার কোচ হোর্হে সাম্পাওলি। প্রথম ম্যাচে পয়েন্ট হারানোর পর দ্বিতীয় ম্যাচে ক্রোয়েশিয়ার বিরুদ্ধে জিততেই হবে আর্জেন্টিনাকে। তাই এই ম্যাচে নতুন কোন একাদশ দেখা যেতে পারে আকাশী-সাদাদের।
বৃহস্পতিবার ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে ম্যাচটিকে গ্রুপের সবচেয়ে কঠিন ম্যাচ মনে করা হচ্ছে। তাই পরবর্তন আসতেই পারে। দলের অনুশীলনেও পাওয়া গেছে সেই আভাস। গতকাল পরিবর্তিত একাদশ নিয়ে অনুশীলন করেছেন আর্জেন্টাইন বস। তার নতুন দলে সেন্ট্রাল ডিফেন্ডার তিনজন থাকতে পারে। নিকোলাস ওটামেন্ডির সাথে থাকবেন নিকোলাস তাগিলাফিকো ও গ্যাব্রিয়েল মার্কাদো। প্রথম ম্যাচে মার্কোস রোহোর বাজে পারফরম্যান্সের কারণে তাকে এ দলে রাখা হয়নি।

অন্যদিকে গত ম্যাচে খেলা অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া ও লুকাস বিগলিয়াকেও দেখা যায়নি প্রথম একাদশের প্র্যাকটিসে। তাদের জায়গায় উইংব্যাক হিসেবে খেলবেন মার্কোস আকুনা ও এদুয়ার্দো সালভিও। দলে ঢুকতে পারেন আগের ম্যাচে ৭০ মিনিটের সময় বদলি হিসেবে নেমে দারুণ খেলা ক্রিশ্চিয়ান পাভন। মেসির সাথে আরেক ফরোয়ার্ড আগুয়েরো যে থাকবেন সেটি অনেকটাই নিশ্চিত। ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডে যথারীতি থাকছেন হাভিয়ের মাসচেরানো।

দলে পরিবর্তনের বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে ডিফেন্ডার গ্যাব্রিয়েল মার্কাদো বলেন, ‘হ্যাঁ, আমরা বিভিন্ন পদ্ধতিতে কাজ করেছি। উইংয়ে কিংবা মাঝখানে পাঁচজনের একটি লাইন বানিয়েছি আমরা। প্রতিটি ম্যাচেই কিছু না কিছু দরকার হয় এবং তা যদি পাঁচজনের লাইন হয়, তাহলে আমরা এটিই করবো। যদি এটা চারজনের লাইন হয়, তবে তাই করবো। আমাদের আর কিছুদিন বাকি আছে কিভাবে খেলবো তা ঠিক করার জন্য। সূত্র: অনলাইন/ইসপিএন