ফয়সাল হত্যাকারীদের বাঁচাতে ষড়যন্ত্র চলছে, সাংবাদিক সম্মেলনে অভিযোগ

ফটিকছড়ি প্রতিনিধি: ফটিকছড়ির ছাত্রলীগকর্মী আলী আকবর ফয়সালের হত্যাকারীদের বাঁচাতে ঘাতকের পরিবারের লোকজন ও একটি কুচক্রী মহল ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ করেছ

সফিকুল ইসলাম জুয়েল এর ইন্তেকালে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ মাইজভাণ্ডারীর শোক
ইপসা চট্টগ্রাম বিভাগীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ সমাজ উন্নয়ন সংগঠন নির্বাচিত
ডিবি পুলিশ কর্তৃক যুব ফোরাম ও পিসিপি’র ৩ নেতা-কর্মীকে আটকের নিন্দা

ফটিকছড়ি প্রতিনিধি: ফটিকছড়ির ছাত্রলীগকর্মী আলী আকবর ফয়সালের হত্যাকারীদের বাঁচাতে ঘাতকের পরিবারের লোকজন ও একটি কুচক্রী মহল ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ করেছেন তার পরিবার। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১১টায় নাজিরহাটে একটি কমিইনিটি সেন্টারে ফয়সাল হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবীতে ও অভিযুক্তদের পরিবারের মিথ্যাচারের প্রতিবাদে সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সাবেক ইউপি সদস্য আলহাজ্ব এম. আব্দুল লতিফ। লিখিত বক্তব্যে তিনি উল্লেখ করেন, আলী আকবর ফয়সালের মৃত্যু সংবাদ এলাকায় প্রচার হলে মুহুর্তেই এলাকাজুড়ে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় জনতা ফয়সাল হত্যার অভিযুক্তদের ঘরে অগ্নিসংযোগ করে।

গত ১৮ অক্টোবর ফয়সাল হত্যার অভিযুক্তদের পরিবারের পক্ষে এক সংবাদ সম্মেলন করে, আমাকেসহ এলাকার নিরীহ সহজ-সরল ব্যক্তিবর্গকে অগ্নিসংযোগের নেতৃত্ব দেওয়ার অভিযোগ আনেন। আমি এবং যাদের নাম উল্লেখ করা হয়েছে আমরা কোনভাবে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় সম্পৃক্ত ছিলামনা। ফয়সাল হত্যাকান্ড দায়ের হওয়া মামলা ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার অপচেষ্টার অংশ হিসেবে এলাকার নিরীহ মানুষের নাম উল্লেখ করে সংবাদ সম্মেলন ও থানায় অভিযোগ দাখিল করে। আমি এ মিথ্যাচারের তীব্র প্রতিবাদ ও ফয়সাল হত্যাকা-ের সুষ্ঠু তদন্ত পূর্বক দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবী করছি।

এ সময় নিহত ফয়সালের পিতা আব্বাস আলী, মামলার বাদী নিহতের চাচা মোহাম্মদ ফারুক, ডা. সাধন চন্দ্র শীল, ফটিকছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. জামাল উদ্দিন, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সোহারাব হোসাইন, নানুপুর ইউপির সদস্য সোলাইমান, আব্দুস সালাম মেম্বার, আবু তাহের, আব্দুর শুক্কুর, আলীম উদ্দিন প্রমুখ।

বসত ঘরে অগ্নি সংযোগ ও লুটপাটের অভিযোগ:
এদিকে গত বৃহস্পতিবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে ছাত্রলীগ কর্মী ফয়সাল হত্যার জের ধরে স্থানীয় কিছু চিহ্নিত দুষ্কৃতিকারী এ হত্যাকান্ডর সাথে অভিযুক্ত ৭-৮ জনের ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান ও বসতঘরে অগ্নিসংযোগ করে এবং ঘরে ঢুকে ব্যাপক লুটপাট চালায় বলে অভিযোগ করেন। তারা নিরাপত্তার অভাবে এলাকা ছাড়া হয়ে আত্মীয় স্বজনের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছে বলেও জানান।

ভুক্তভোগী পরিবারগুলো পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন লাভলী আক্তার। তিনি জানান, দুস্কৃতিকারীরা ঘরে ঢুকে ২০ লক্ষাধিক টাকার স্বর্ণালংকার, পাঁচটি স্মার্ট ফোন, ওমরা হজে যাওয়ার জন্য রক্ষিত টাকা, গরু ছাগল লুটপাট করেন।