খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদপাহাড়ের সংবাদশিরোনামস্লাইড নিউজ

বিজিবির গাড়িতে হামলা, সংঘর্ষ, রাস্তা খুড়ে ফেলা ও অগ্নিসংযোগের মধ্য দিয়ে শেষ হলো ইউপিডিএফ’র অবরোধ

স্টাফ রিপোর্টার: খাগড়াছড়িতে কর্তব্যরত পুলিশের সাথে সংঘর্ষ, রাস্তা খুড়ে ফেলা, বিজিবির গাড়িতে হামলা ও গাড়িতে অগ্নিসংযোগের মধ্য দিয়ে দ্বিতীয় দিনের (রোববার) শেষ হলো ইউপিডিএফ’র অবরোধ কর্মসূচি। অবরোধ চলাকালে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ-বিজিবি‘র গাড়ি ভাঙচুর করেছে অবরোধ সমর্থক ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট-ইউপিডিএফ কর্মীরা। রোববার বেলা পৌনে দুইটার দিকে খাগড়াছড়ির আলুটিলা পুনর্বাসন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, ঘটনার সময় বিজিবি‘র দক্ষিন-পুর্ব রিজিয়নের ভারপ্রাপ্ত রিজিয়ন কমান্ডার কর্ণেল আনিসুর রহমানকে বহনকারী পাজেরোসহ দুইটি পাজেরো ও দুইটি পিকআপ খাগড়াছড়ি থেকে চট্টগ্রামে ফেরার পথে খাগড়াছড়ি‘র আলুটিলা পুনর্বাসন এলাকায় পুনর্বাসন যাত্রী ছাউনির পাশের পাহাড় থেকে ৫/৭জন অবরোধ সমর্থক বিজিবির গাড়ি লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ও গুলতি মারে।

এতে বিজিবির দক্ষিন-পুর্ব রিজিয়নের ভারপ্রাপ্ত রিজিয়ন কমান্ডার কর্ণেল আনিসুর রহমানকে বহনকারী পাজেরো গাড়ির ডান পাশের গ্লাস ভেঙ্গে যায়। এসময় অপর পাজেরোটির পেছনের অংশ সামান্য ক্ষতিগ্রস্থ হয়। তবে গাড়িতে থাকা কেউ আহত হয়নি বলে সুত্রটি জানিয়েছে। এসময় বিজিবি ও স্থানীয়দের উপস্থিতি দেখে অবরোধ সমর্থক ইউপিডিএফ কর্মীরা পালিয়ে যায়। এদিকে সকাল সাড়ে ৮টায় খাগড়াছড়ি ফায়ার সার্ভিস এলাকায় পিকেটিং করার সময় পুলিশের সাথে পিকেটারদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পিকেটাররা রাস্তায় টায়ার জ্বালালে পুলিশ তা সরিয়ে দেয়। এছাড়া একই সময় ধর্মপুর এলাকায় দুইটি ব্যাটারী চালিত অটোরিক্সায় অগ্নিসংযোগ করে পিকেটাররা। মৎস ভবনের সামনে রাস্তায় টায়ারে আগুন দেয় পিকেটাররা।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এমএম সালাহউদ্দিন জানান, আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক, অতিরিক্ত পুলিশের পাশাপাশি বিজিবি সদস্যরা মোতায়ন রয়েছে। সাজেক গামী পর্যটকদের পুলিশ নিরাপত্তা দিয়ে খাগড়াছড়ির সীমানা অতিক্রম করিয়ে দেয় এবং ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা নৈশকোচগুলোও একই ভাবে আনা হয়।

এছাড়াও জেলার লক্ষ্মীছড়ি উপজেলায় ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট(ইউপিডিএফ)-এর ডাকা সকাল-সন্ধ্যা সড়ক অবরোধের ২য় দিনে শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হয়েছে হয়েছে। লক্ষ্মীছড়ি-মানিকছড়ি সড়েক মংহলা পাড়া  যাত্রীছাউনি এলাকায় মূল পাকা সড়কের বেশ কিছু অংশে পিচ উঠিয়ে মাঠি খুড়ে ফেলে। খবর পেয়ে দ্রুত সেনাবাহিনী ও পুলিশের টহল ঘটনাস্থলে পৌছলে পিকেটাররা পালিয়ে যায়। পরে সেনাবাহিনী ও পুলিশ সহায়তায় মাটি ভরাট করলে রাস্তায় যান চলাচল শুরু হয়।

গত ৩ জানুয়ারী খাগড়াছড়ি সদরের সুইচ গেইট এলাকায় প্রতিপক্ষের গুলিতে খুন হন ইউপিডিএফ সংগঠক মিঠুন চাকমা। গতকাল দুপুরে সাংগঠনিক ভাবে তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে মিঠুনের লাশ স্বণির্ভর এলাকার অফিসে নিতে চাইলে প্রশাসন তাতে বাধা দেয়। এর প্রতিবাদে রবিবার খাগড়াছড়ি জেলায় সকাল-সন্ধ্যা সড়ক অবরোধের ডাক দিয়েছে সংগঠনটি।