মহালছড়িতে অসহায় ও প্রতিবন্ধি দুই পরিবারের মাঝে সেনাবাহিনীর অর্থ সহায়তা

মহালছড়িতে অসহায় ও প্রতিবন্ধি দুই পরিবারের মাঝে সেনাবাহিনীর অর্থ সহায়তা

মহালছড়ি (খাগড়াছড়ি) প্রতিনিধি: খাগড়াছড়ির মহালছড়িতে গরীব, অসুস্থ ও প্রতিবন্ধি ২ পরিবারকে আর্থিক সহযোগিতা প্রদান করেছে জোনের সেনাবাহিনী। ১৭ জানুয়ারী সোমব

দীঘিনালায় সেনাবাহিনীর বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা
স্বাধীনতা দিবসে লক্ষ্মীছড়ি জোনে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানে প্রীতিভোজ
দরিদ্র পরিবারের মাঝে নগদ অর্থ সহায়তা দিলো খাগড়াছড়ি রেড ক্রিসেন্ট

মহালছড়ি (খাগড়াছড়ি) প্রতিনিধি: খাগড়াছড়ির মহালছড়িতে গরীব, অসুস্থ ও প্রতিবন্ধি ২ পরিবারকে আর্থিক সহযোগিতা প্রদান করেছে জোনের সেনাবাহিনী।

১৭ জানুয়ারী সোমবার সকাল সাড়ে ১০ টায় দুর্গম এলাকার বসবাসকারি প্রতিবন্ধি পরিবারের বাড়িতে গিয়ে এ অর্থ সহায়তা প্রদান করা হয়। মহালছড়ি জোনের আওতাধীন এলাকায় দুর্গম চৌংড়াছড়ি রোয়াজাপাড়া গ্রামে বসবাসকারী রিপ্রুসাই মারম ‘র পরিবার ও মোহাম্মদপুর গ্রামে বসবাসকারি মো: মঈনুদ্দিন এর পরিবার। দুই পরিবারই অত্যন্ত গরীব ও অসহায়। এ দুই পরিবারের দুরাবস্থা ও মানবেতর জীবনযাপন কথা জানতে পেরে মহালছড়ি জোনের পক্ষ থেকে মানবিক সহায়তা প্রদানের উদ্যেগ নেয়া হয়। রিপ্রুচাই মারমা’র পরিবারের ৬ জনের মধ্যে নিজেই এবং ৪ সন্তানসহ ৫ জনেই প্রতিবন্ধি । এদিকে মো: মঈনুদ্দিন দীর্ঘদিন ধরে প্যারালাইসিস রোগে আক্রান্ত । এ দুই পরিবারে আয় রোজগার করার মতো কেউ নেই। প্রতিবন্ধী শিশুদের চিকিৎসার সুবিধার্থে মহালছড়ি জোনের জোন কমান্ডার এর পক্ষে জোনের লেফটেন্যান্ট মুহতাসিম আহনাফ শাহরিয়ার প্রতিবন্ধী শিশুর বাবা রিপ্রুসাই মারমাকে ১০ হাজার ও প্যারালাইসিস রোগে আক্রান্ত ব্যক্তি মো: মঈনদ্দিন এর স্ত্রী মোসা: শামীমা আক্তারকে ১০ হাজার টাকা আর্থিক অনুদান প্রদান করেন।

আর্থিক সহায়তা প্রদানকালে লেফটেন্যান্ট মুহতাসিম আহনাফ শাহরিয়ার বলেন, মহালছড়ি জোন সর্বদা সাধারণ মানুষের পাশে থেকে বিভিন্ন সাহায্য ও সহযোগিতা করে আসছে। মানুষের পাশে দাড়ানোর জন্য মহালছড়ি জোনে এটি একটি ক্ষুদ্র প্রয়াস মাত্র। ভবিষ্যতেও মহালছড়ি জোনের এরুপ কার্যক্রম চলমান থাকবে। করোনা মহামারীর মাঝেও মহালছড়ির সেনাবাহিনী এ ধরণের মানবিক সহায়তা কার্যক্রম চলমান থাকবে বলে জানান তিনি।

মহালছড়ি জোনের জোন অধিনায়ক লে: কর্ণেল মোহাম্মদ আরাফাত হোসেন বলেন, শান্তি, সম্প্রীতি এবং উন্নয়ন কার্যক্রমকে সামনে রেখে ২০৩ পদাতিক ব্রিগেড ও খাগড়াছড়ি রিজিয়ন বিভিন্ন মানবিক সহায়তা কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে। সেনাবাহিনীর এই ধরনের মানবিক সহায়তা কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।