• May 22, 2024

মানিকছড়িতে বিদ্যুৎ সংযোগের খুঁটি সম্প্রসারণে গ্রাহক থেকে অর্থ নেয়ার অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার: মানিকছড়ি উপজেলার গুচ্ছগ্রামের মৌলভী পাড়ায় বিদ্যুতের খুঁটি ও সংযোগ বাণিজ্যের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেছে এলাকাবাসী।

১৩ জুলাই খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক বরাবরে দেয়া অভিযোগে বলা হয় মানিকছড়ি গুচ্ছ গ্রামের সাধারণ জনগন থেকে জনপ্রতি বিদ্যুতের খুঁটি বাবদ টাকা দিতে হবে মাইকে ঘোষণা দেয়া হয়। পরে এলাকাবাসীর কাছ থেকে কতিপয় লোকজন থেকে প্রতিখুটি ১৫ হাজার টাকা হারে দাবি করা হয়। পরে ৩ থেকে ৫ হাজার টাকা অগ্রীম অর্থ নেয় মানিকছড়ির উপজেলার কতিপয় ব্যক্তি।

মানিকছড়ি গুচ্ছগ্রাম মৌলভী পাড়ায় গেলে এলাকার বাসিন্দা ভিক্ষুক শেফালী বেগম বলেন, আমি মানুষের দ্বারে দ্বারে গিয়ে হাত পেতে ভিক্ষা করে খাই। অনাহারে-অর্ধাহারে আমার সংসার চালাই অনেক করে। আসাদুল বিদ্যুৎ সংযোগের কথা বলে আমার কাছ থেকে ৫ হাজার টাকা নিয়ে গেছে। কিন্তু এখনও কোন বিদ্যুৎ সংযোগের ব্যবস্থা করছে না। আমি বিদ্যুৎ সংযোগ চাই অথবা আমার টাকা ফেরৎ চাই।

একই এলাকার হালিমা বেগম বলেন, যুবলীগ নেতা আসাদুল বিদ্যুৎ সংযোগ দিবে বলে আমার কাছে টাকা খুঁজে। সে জানায় বিদ্যুৎ এর কোন খুঁটি সরকারি ভাবে আসে না। টাকা দিলে খুঁটি আসে। দলীয় লোক হিসেবে আসদুলকে বিশ্বাস করে আমিও ৩ হাজার টাকা দিয়েছি। বাকি টাকা দিলে বিদ্যুৎ সংযোগ দিবে বলে জানায়। বিদ্যুৎ এর ব্যবস্থা করতে না পারলে আমার টাকা ফেরত চাই।

৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ আব্দুল হাইসহ এলাকার আব্দুল হাকিম, মোয়াজ্জেম ফকির এবং এলাকার ভুক্তভোগীরা বলেন, আসাদুল গত কয়েক বছর আগে বিদ্যুৎ সংযোগের কথা বলে খরচের টাকা খুঁজেন।

গত কয়েক বছর আগেও গ্রামের অর্ধশতাধীক পরিবার হতে ১ লক্ষ টাকা আদায় করেন। অদ্যাবধি তাদের দেয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন হয়নি। টাকা ফেরত চাইলে এখন তারা বলে আগের হিসাব বাদ এখন নতুন করে ১০/১৫ হাজার করে টাকা দিলে বিদ্যুতের খুঁটি দেয়া হবে, তা না হলে পাবেন না জানিয়ে দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে আসাদুল এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমার বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন ষড়যন্ত্রমূলক অভিযোগ করা হয়েছে। টাকা নেয়ার বিষয়ে আমি কিছুই জানিনা।

বর্তমানে উক্ত এলাকায় সরকার বিদ্যুৎ সংযোগ সম্প্রসারণের জন্য খুটি বরাদ্ধ করলেও নতুন করে সুবিধাভোগীদের কাছ থেকে দ্বিতীয়বারের মতো আরো অর্থ চাওয়ার কারণেই প্রকাশ্যে অভিযোগ ওঠে আসলো। সাধারণ মানুষ মনে করে এ হয়রানী রোধকল্পে কর্তৃপক্ষ সুষ্ঠু তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবে এমনটাই আশাবাদী।

পাহাড়ের আলো

https://pahareralo.com

সর্বাধিক জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল। সর্বশেষ সংবাদ সবার আগে জানতে চোখ রাখুন পাহাড়ের আলোতে।

Related post