মানিকছড়িতে বৃহত্তর কালাপানি একতা ক্লাবের আত্মপ্রকাশ

আবদুল মান্নান: মানিকছড়ি উপজেলার প্রসিদ্ধ কালাপানি একটি অবহেলিক জনপদ। সেই ১৯৬০ সালে এ জনপদ থেকে বৃটিশ সরকারের অনুসন্ধানী দল আবিস্কার করে সেমুতাং গ্যাস ফিল্ড। আজও এখানকার গ্যাস নিয়মিদ যাচ্ছে জাতীয় গ্রীডে। অথচ এ জনপদে আশানুরুপ উন্নয়ন এখনো ঘটেনি। ফলে এখানকার চারটি ওয়ার্ডের সকল জনপ্রতিনিধি,ব্যবসায়ী,শিক্ষক ও যুবকরা মিলে গঠন করেছে‘বৃহত্তর কালাপানি একতা ক্লাব’ এটি গঠনে জনপদে ব্যাপক সাড়া পড়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার ২৩১ নং কালাপানি মৌজায় রয়েছে প্রায় ১২টি পাড়া(গ্রাম)। এর দক্ষিণে হালদা খাল, উত্তরে বাটনাতলী ইউপি ও রামগড় উপজেলার পাতাছড়া ইউপি, পশ্চিমে ফটিকছড়ির ভূজপুর ইউপি’র শান্তিরহাট ও দাতমারা এবং পূর্বে দশবিল ও ছদুরথীল। জনসংখ্যা প্রায় ১৫ হাজার। এ জনপদে ১৯৬০ দশকে আবিস্কার হয় দেশের প্রাকৃতিক সম্পদ সেমুতাং গ্যাসফিল্ড। বর্তমানে জাতীয় গ্রীডে যাচ্ছে এখানকার গ্যাস। কিন্তু বাতির নীচে রয়েছে অন্ধকার! অর্থ্যাৎ এ জনপদে এখনো পর্যন্ত জনপ্রত্যাশা অনুযায়ী উন্নয়ন ঘটেনি। যে কোন জনপদ উন্নয়নে পূর্ব শর্ত শিক্ষা। এখানকার শিক্ষাব্যবস্থা উপজেলার সবচেয়ে পিছিয়ে। নেই কোন মাধ্যমিক স্কুল! ৩/৪টি প্রাথমিক বিদ্যালয়.দু’টি এবতেদায়ী মাদরাসা ছাড়া আর কোন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এখানে গড়ে উঠেনি। ফলে আধুনিক প্রতিযোগিদা থেকে পিছিয়ে পড়ছে শিশু-কিশোররা।

এ অবহেলিত জনপদে অবশেষে উন্নয়ন ও জনগণের ভাগ্য পরিবর্তনের স্বপ্ন দেখাতে প্রথমে উদ্যোগ নিয়েছে যোগ্যাছোলা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান এবং সরকার দলীয় আ.লীগ সভাপতি মো. জয়নাল আবেদীন। তিনি গত ২০১৭ সালে যোগ্যাছোলা ইউপি’র হালদা খালের উত্তরের কালাপানি জনপদে অবস্থিত ১,২,৩ ও ৪ নং ওয়ার্ডসহ বাটনাতলী ইউনিয়নের কিছু অংশ নিয়ে একটি নতুন ইউনিয়ন গঠনের প্রস্তাব পাঠিয়েছেন সংশ্লিষ্ঠ মন্ত্রণালয়ে। এর নামকরণ হয়েছে‘ কালপানি ইউনিয়ন’। যা বর্তমানে প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

আলাদা ইউনিয়নের স্বপ্ন ধারণ করে এবার আরো একধাপ এগিয়ে নিতে গঠন করা হলো‘বৃহত্তর কালাপানি একতা ক্লাব’। এলাকার সাবেক ও বর্তমান হেডম্যান,কার্বারী, ইউপি সদস্য, শিক্ষক, পল্লী চিকিৎসক, ছাত্র-যুবক এক হয়ে গত ২৪ আগস্ট বিকালে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট সামাজিক সংগঠনের আত্মপ্রকাশ করান। এতে সভাপতি করা হয়েছে উপজেলা গ্রাম ডাক্তার কল্যাণ পরিষদেও সাধারণ সম্পাদক ও লক্ষ্মীছড়ি সরকারি কলেজের সহকারী গ্রন্থাগারিক ডা. মো. রমজান আলীকে। সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে এলাকার উদীয়মান যুবক প্রিয় লাল চাকমাকে। আর সাংগঠনিক পদে আনা হয়েছে পল্লী চিকিৎসক ডা. মহি উদ্দীন, ডা. মো. রফিকুল ইসলাম পাখি, মো. আতিক ও মো. ইয়াছিনকে। এছাড়া ৯ জন সহ-সভাপতি, ৩জন যুগ্ন সাধারণ সম্পাদকসহ মোট ৫১ সদস্য কমিটির ঘোষণা করা হয়েছে।

পাহাড়ের আলো

https://pahareralo.com

সর্বাধিক জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল। সর্বশেষ সংবাদ সবার আগে জানতে চোখ রাখুন পাহাড়ের আলোতে।

Related post