খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদপাহাড়ের সংবাদশিরোনামস্লাইড নিউজ

মেয়েরা শিক্ষিত হলে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হবে – খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক

                            খাগড়াপুর মহিলা কল্যাণ সমিতির বার্ষিক সাধারণ সভা
খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় গ্লোবাল অ্যাফেয়ার্স এর অর্থায়নে খাগড়াছড়ির প্রান্তিক নারী ও কিশোরীদের ক্ষমতায়নে কর্ম-উদ্যোগ প্রোগ্রাম ও খাগড়াপুর মহিলা কল্যাণ সমিতির আয়োজনে বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

১১মার্চ শুক্রবার খাগড়াপুর জে.বি.সি. রেস্টুরেন্টের সম্মেলন কক্ষে দিনব্যাপী আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি বলেন, বাল্য বিবাহ একজন মেয়ের জীবনকে পঙ্গু করে দেয়। মেয়েরা শিক্ষিত হলে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হবে এবং মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন থেকে মুক্তি পাবে। তাই সমিতিকে দক্ষতামূলক বিভিন্ন কার্যক্রমের পাশাপাশি পাহাড়ের নারী শিক্ষা, বাল্যবিবাহ রোধের প্রতি জোর দেওয়ার আহবান জানান তিনি।

খাগড়াপুর মহিলা কল্যাণ সমিতির নির্বাহী পরিচালক শেফালিকা ত্রিপুরার সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন লেডিস ক্লাবের সভাপতি দ্বীপানিতা বিশ্বাস, খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহফুজা মতিন।
এসময় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পেরাছড়া ইউপি চেয়ারম্যান তপন বিকাশ ত্রিপুরা, গুইমারা ইউপি চেয়ারম্যান নির্মল নারায়ণ ত্রিপুরা, সিন্দুকছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান রেদাক মারমা, কমলছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান সুনীল চাকমা, প্রধান শিক্ষক (অবঃ) ত্রিনা চাকমা, উইমেন রিসোর্স নেটওয়ার্কের জেলা সমন্বয়ক চিংমেপ্রু মারমা, কাবিদাং এর নির্বাহী পরিচালক লালসা চাকমা, মানবাধিকার কর্মী নমিতা চাকমাসহ সমিতির কার্যনির্বাহী সদস্যবৃন্দ ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধি।

আলোচনা সভা শেষে পরে বিভিন্ন ইভেন্টের উপর আয়োজিত প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানে পিংকি বড়ুয়া ও মানস ত্রিপুরার সঞ্চালনায় প্রথম অধিবেশনে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কেএমকেএস এর সদস্য মনিষা তালুকদার। এতে বার্ষিক কর্মপরিকল্পনা প্রতিবেদন পেশ করেন গীতিকা ত্রিপুরা। এসময় সমিতির সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত বিবরণ তুলে ধরেন খাগড়াপুর মহিলা কল্যাণ সমিতির সদস্য ও নারী উদ্যোক্তা শাপলা দেবী ত্রিপুরা।

উল্লেখ্য, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলায় অবস্থিত স্থানীয় উন্নয়ন কাজে নিয়োজিত ও উন্নয়নের জন্য নেতৃত্বদানকারী একটি নারী প্রধান সংগঠন। এটি ১২ই মার্চ ১৯৯৩ সালে স্থানীয়, শিক্ষিত এবং উদ্যমী কয়েকজন আদিবাসী সমাজ কর্মীদের নিয়ে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলায় নারী অধিকার বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত হয়।