রামগড়ে জাতীয় পাটির দ্বি-বার্ষিক কাউন্সিল: আংশিক কমিটি গঠন

রামগড় প্রতিনিধি: সাবেক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা জাতীয় পাটির আহবায়ক মনিন্দ্র লাল ত্রিপুরা বলেছেন, জাতীয় পাটি রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে এ এলা

মানিকছড়ির বাটনাতলী ইউনিয়ন বিএনপি’র সম্মেলন ও ইফতার মাহফিল
মানিকছড়ি গিরি মৈত্রী সরকারি ডিগ্রী কলেজের দুর্নীতি অনুসন্ধানে নেমেছে দুদক
মহালছড়িতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস উদযাপন

রামগড় প্রতিনিধি: সাবেক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা জাতীয় পাটির আহবায়ক মনিন্দ্র লাল ত্রিপুরা বলেছেন, জাতীয় পাটি রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে এ এলাকার শিক্ষা, সাংস্কৃতিক, চিকিৎসা, যোগাযোগ ও বিদ্যুতায়ন সহ সকল ক্ষেত্রে যে উন্নয়ন সাধিত হয়েছে তা নি:সন্দেহে প্রশংসার দাবী রাখে। তিনি বিগত আমলে জাতীয় পাটি যে ভাবে দেশের উন্নয়ন করেছে সে ধারাকে অব্যাহত রাখতে নেতা কর্মীদের মিলেমিশে দেশের উন্নয়নসহ জাতীয় পাটিকে শক্তিশালী করার লক্ষে কাজ করে যাবার আহ্বান জানান।

১৪ নভেম্বর বেলা সাড়ে ১১টা থেকে বিকাল ৪টা পযর্ন্ত একটানা রামগড় শিল্পী কমিউনিটি সেন্টারে আয়োজিত রামগড় উপজেলা জাতীয় পাটির দ্বি-বার্ষিক কাউন্সিল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন।

কাউন্সলের উদ্বোধন করেন জাতীয় পাটির কেন্দ্রীয় র্কাযনির্বাহী কমিটির নির্বাহী সদস্য ইঞ্জিনিয়ার খোরশেদ আলম। প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন, রামগড় উপজেলা জাতীয় পাটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাফর আহম্মদ।

জেলা জাতীয় পাটির যুব কমিটির সভাপতি নজরুল ইসলাম সঞ্চালনায় রামগড় উপজেলা জাতীয় পাটির সাবেক সভাপতি ও দ্বি-বার্ষিক কাউন্সিল প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক আব্দুর রহমান এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি থেকে বক্তব্য রাখেন, জেলা জাতীয় পাটির সদস্য সচিব প্রকৌশলী কেশব লাল দে, প্রধান উপদেষ্টা শাহাজ উদ্দিন, আবুল হোসেন, যুগ্ন-আহবায়ক ফিরোজ আহম্মেদ, শহিদ উল্লাহ, আমিনুল হক, আবুল কাশেম ও জিল্লুর রহমান। এসময় উপজেলা জাতীয় পাটির জেলা- উপজেলার সদস্য-সদস্যাসহ নেতার্কমী, গন্যমান্যব্যক্তির্বগ উপস্থিত ছিলেন।

কাউন্সিলে প্রধান অতিথির বক্তব্য শেষ পর্যায়ে কমিটি ঘোষণা কালে উপস্থিত একাংশ নির্বাচন দাবি করে একপর্যায়ে প্রধান অতিথি উপস্থিত হস্ত উত্তোলনের মাধ্যমে কমিটি নির্বাচন করেও সভাপতির সম্পাদকের নাম ঘোষণা করা হয়নি, সহ-সভাপতি সহ-সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক একক প্রার্থী থাকায় তাদের নাম ঘোষণা করেন। সভাপতি পদটি মিমাংশা না হওয়ার ৫দিনের মধ্যে উপজেলা কমিটিসহ নেতাকর্মীদের সহযোগীতায় জেলা কমিটিকে জানানোর জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়। যা পরবর্তীত্বে জেলা কমিটির মাধ্যমে সভাপতি-সম্পাদকের নাম ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়ে অনুষ্ঠান শেষ করা হয়।