লক্ষ্মীছড়ি জোনের তত্বাবধানে সেনাবাহিনীতে অফিসার পদে যোগদান উদ্বুদ্ধকরণ ক্লাশ

স্টাফ রিপোর্টার: খাগড়াছড়ি জেলার লক্ষ্মীছড়ি জোনের তত্বাবধানে সেনাবাহিনীতে অফিসার পদে যোগদান উদ্বুদ্ধকরণ ক্লাশ ফটিকছড়ি ডিগ্রী কলেজ ও নানুপুর লায়লা-কবির

লক্ষীছড়ি জোনের তত্বাবধানে চক্ষু শিবির ১৯ অক্টোবর
রামগড়ে বিজিবির অভিযানে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার
সেনাবাহিনীর সহায়তায় এইচএসসি পরীক্ষার্থীর ফরম পুরণ

স্টাফ রিপোর্টার: খাগড়াছড়ি জেলার লক্ষ্মীছড়ি জোনের তত্বাবধানে সেনাবাহিনীতে অফিসার পদে যোগদান উদ্বুদ্ধকরণ ক্লাশ ফটিকছড়ি ডিগ্রী কলেজ ও নানুপুর লায়লা-কবির ডিগ্রি কলেজে অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২৫ অক্টোবর বৃহস্পতিবার দিন ব্যাপি আলাদা আলাদাভাবে এ ক্লাশ কার্যক্রম চলে। লক্ষ্মীছড়ি জোন লেফটেন্যান্ট কর্ণেল মোঃ মিজানুর রহমান মিজান ফটিকছড়ি সরকারি ডিগ্রী কলেজ ও নানুপুর লায়লা কবির ডিগ্রী কলেজ মেধাবী ছাত্র/ছাত্রীদের বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে অফিসার পদে যোগদানের লক্ষ্যে একটি প্রেষনামূলক ক্লাশ পরিচালনা করেন।

উক্ত প্রেষনামূলক/মটিভেশন ক্লাশে ফটিকছড়ি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ এর ছাত্র/ছাত্রীরা অত্যন্ত আগ্রহের সাথে ক্লাশে অংশগ্রহণ করে। ক্লাশে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী কর্তৃক পরিচালিত বিভিন্ন কর্মকান্ড নিয়ে পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশন ও ভিডিও চিত্র প্রদর্শন করা হয়। এছাড়াও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ইতিহাস, ঐতিহ্য নিয়ে আলোচনা করেন জোন কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কর্ণেল মোঃ মিজানুর রহমান মিজান। তিনি বলেন, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী বর্তমানে বিশ্বের বুকে একটি দক্ষ, সুশৃঙ্খল ও সুসংগঠিত বাহিনীরুপে আত্মপ্রকাশ করেছে। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর উন্নতির এ্ই ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে এবং দেশের সংকটময় ও যুদ্ধকালীন সময় সুদক্ষ নেতৃত্ব দিতে মেধাবী ছাত্র/ছাত্রীদের ভূমিকা অনস্বীকার্য। ক্লাশ চলাকালীন সময় তিনি বিভিন্ন প্রেজেন্টেশন প্রর্দশনের মাধ্যমে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধের সময় সেনাবাহিনীর বীরগাথা, সামরিক পেশা, ইতিহাস ও ঐতিহ্য তুলে ধরেন। এ সময় তিনি পার্বত্য চট্টগ্রামে সেনাবাহিনীর কর্তৃক পরিচালিত বিভিন্ন কর্মকান্ডের চিত্র ছাত্র/ছাত্রীদের মাঝে তুলে ধরেন।

সেনাসদর কর্তৃক বিভিন্ন নির্দেশনা অনুযায়ী জোনের দায়িত্বপূর্ন এলাকা সমূহে স্বনামধন্য সরকারী/বেসরকারী কলেজে শিক্ষার্থীদের সেনাবাহিনীতে অফিসার হিসেবে যোগদানে উৎসাহিত করার লক্ষ্যে বিভিন্ন উদ্যোগের পাশাপাশি ঐ সকল প্রতিষ্ঠানে জ্যেষ্ঠ অফিসারদের পরিদর্শনের মাধ্যমে এই সকল প্রেষনামূলক ক্লাশ পরিচালনা করা হয়ে থাকে। তেমনি একটি উদ্যোগে এই প্রথমবাবের মত লক্ষ্মীছড়ি জোন কর্তৃক অফিসার পদে মোটিভেশন ক্লাশের আয়োজন করা হলো।

জোন কমান্ডার প্রজেক্টরের মাধ্যেমে ক্লাশে “চির উন্নত মত শির” এই মূলমন্ত্রকে উল্লেখ করে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে অফিসার পদে যোগদানের জন্য কী কী করনীয় সে সম্পর্কে বিস্তারিত ধারনা প্রদান করা হয়। তিনি এ বিষয়ে শিক্ষার্থীদেরকে বছরের বিভিন্ন সময় অনলাইন, পেপার পত্রিকা ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে প্রদানকৃত বিজ্ঞপ্তি সম্পর্কে অবগত ও খোঁজ খবর রাখার নির্দেশনা প্রদান করেন। এছাড়াও joinbangladesharmy.army.mil.bd ওয়েবসাইটের মাধ্যমে সেনাবাহিনীর সাম্প্রতিক সময়ের সকল বিজ্ঞপ্তি পাওয়া যায় এবং যে কেউ আবেদন করতে পারবে। এ ব্যাপারে যে কোন ধরনের সহযোগীতার জন্য লক্ষ্মীছড়ি জোন সর্বদা সহায়ক ভূমিকা পালন করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। জোন কমান্ডার, বর্তমানে সেনাবাহিনীতে পুরুষদের পাশাপাশি মহিলাদের যোগদানের বিষয়েও বিস্তারিত ধারনা প্রদান করেন। জোন কমান্ডার চাইনিজ ব্যম্বো’র উদাহরণ দিতে গিয়ে বলেন, এক বছর কিংবা দুই বছরে নয়, এই ব্যাম্বো(বাঁশ) অঙ্কুরোদগম (চারা গজাতে) সময় লাগে ৫ বছর। কিন্তু শেষ ৬ সপ্তাহে এই বাঁশের উচ্চতা হয় ৯০ ফুট লম্বা। অর্থাত ধৈর্য্য ও আশা নিয়ে থাকলে ফল আসবেই। মনে রাখতে হবে এই চারা গজাতে অনেক পরশ্রম ও সময় ব্যয় করতে হয়েছে, তবেই সফলতা এসছে। ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ধৈর্য ধরে অপেক্ষা করতে হবে আশা থাকতে হবে, থাকতে হবে বিশ্বাস-একদিন সাফল্য আসবেই।

সেনাবাহিনীতে অফিসার পদে যোগদানের এই উদ্বুদ্ধকরণ মটিভেশণ ক্লাশের ব্যাপারে ফটিকছড়ি কলেজ এর ভাইস প্রিন্সিপাল মো: মনিরুজ্জামান এবং লায়লা কবির ডিগ্রী কলেজ অধ্যক্ষ আ.ন.ম সরওয়ার আলম ছাত্র/ছাত্রীদের সেনাবাহিনীতে অফিসার পদে যোগদান এর ব্যাপারে লক্ষ্মীছড়ি জোন কর্তৃক পরিচালিত এই মহৎ উদ্যেগকে আন্তরিকভাবে সাধুবাদ জানান। অধ্যক্ষ আ.ন.ম সরওয়ার আলম বলেন সেনাবাহিনী কর্তৃক পরিচালিত এই ধরনের প্রেষনামূলক ক্লাশ কলেজ এর মেধাবী ছাত্র/ছাত্রীদের ভবিষ্যৎ জীবনকে সুশৃঙ্খল ও সুসংগঠিত করে গড়ে তুলতে ও মাতৃভূমির অখন্ডতা রক্ষায় সুযোগ্য নেতৃত্ব দিতে বিশেষভাবে অনুপ্রেরণা যোগাবে।