লামায় দুই ব্যবাসয়ীকে অপহরণ করে মুক্তিপণ দাবী

লামা (বান্দরবান) প্রতিনিধি: বান্দরবানের লামায় দু’জন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীকে অপহরণ করে মুক্তিপণ দাবী করেছে পাহাড়ী সন্ত্রাসীরা। উপজেলার দূর্গম পাহাড়ী এলাকা ঘ

গুইমারাতে অবৈধভাবে বালু উত্তোল: ড্রেজার মেশিন ও বিপুল বালু জব্দ
পানছড়িতে রনি ত্রিপুরা হত্যার ঘটনায় সর্বোত্তম চাকমাসহ ১৫ জনের বিরুদ্ধে
মানিকছড়িতে রাধা মদন গোপাল সেবাশ্রমে অষ্ট প্রহরব্যাপী মহোৎসব শুরু

লামা (বান্দরবান) প্রতিনিধি: বান্দরবানের লামায় দু’জন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীকে অপহরণ করে মুক্তিপণ দাবী করেছে পাহাড়ী সন্ত্রাসীরা। উপজেলার দূর্গম পাহাড়ী এলাকা ঘিলাপাড়া থেকে বৃহস্পতিবার রাতে ওই ব্যবসায়ীদেরকে অপহরণ করা হয়। অপহৃতরা হচ্ছেন লামা সদর ইউনিয়নের বৈল্লারচর এলাকার মৃত হাসান আলীর পুত্র মহরম আলী (২৮) এবং ঘিলাত্রিপুরা পাড়ার সতিস ত্রিপুরার ছেলে বাসামণি ত্রিপুরা। অপহৃতদের পরিবারের নিকট দু’জনের জন্য অপহরণকারীরা সাড়ে ৫ লক্ষ টাকা মুক্তিপন দাবী করেছেন বলে জানিয়েছেন সদর ইউপি চেয়ারম্যান মিন্টু কুমার সেন।

অপহৃতদের পারিবারিক সূত্র জানায়, অপহৃত মহরম আলী ঘিলা পাড়ার কারবারি সতিস ত্রিপুরার ছেলে বাসামনি ত্রিপুরার সাথে ব্যবসা করতো। তারা উপজেলার দূর্গম পাহাড়ী এলাকা ঘিলা পাড়া, পোপা হেডম্যান পাড়া, দোছড়ি পাড়া ও বদলা পাড়া হতে আদা, হলুদ, মরিচ, কলা ও বাঁশ ক্রয় করে বাজারে এনে বিক্রি করত। মহরম আলীর স্ত্রী ছফুরা বেগম জানান, গত বুধবার সন্ধ্যায় স্বামির সাথে তার মোবাইলে কথা হয়েছিল। তারপর থেকে আর কোন যোগাযোগ নেই। শুক্রবার দুপুরে একটি অজ্ঞাত নাম্বার হতে মুঠোফোনে কল করে মুক্তিপণ হিসেবে ৫০ হাজার টাকা দাবী করে সন্ত্রাসীরা।

লামা সদর ইউপি চেয়ারম্যান মিন্টু কুমার সেন দু’ব্যক্তি অপহরনের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, অপহরণকারীরা কারবারীর ছেলের নিকট ৫ লক্ষ টাকা এবং অপর বাঙ্গালী ব্যবসায়ীর নিকট ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপন দাবী করেছে। আলীকদম জোন সূত্র জানায়, ১০/১২ জনের স্বশস্ত্র একটি পাহাড়ী সন্ত্রাসী গ্রুপ দু’ব্যক্তিকে পথ দেখানোর কথা বলে নিয়ে গিয়ে জিম্মি করে। খবর পাওয়ার পর থেকে তাদের উদ্ধারে সেনাবাহিনী অভিযান পরিচালনা চলছে। এলাকায় সেনা টহল জোরদার করা হয়েছে। লামা থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ লিয়াকত আলী জানান, বিষয়টি শুনেছি। এলাকাটি খুবই দূর্গম। এ বিষয়ে সেনাবহিনীর সাথে যোগাযোগ করা হচ্ছে। এখন পর্যন্ত কোন লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায় নি।