Homeস্লাইড নিউজশিরোনাম

লামায় ২২ হাজার ৮২২ দরিদ্র পরিবার স্যাপলিং সুবিধার আওতায়

প্রিয়দর্শী বড়ুয়া, লামা প্রতিনিধি: বান্দরবানের লামায় ২২ হাজার ৮২২ দরিদ্র পরিবার ইউ.এস.এ.আই.ডি’র আর্থিক ও এইচ.কে.আই’র কারিগরী সহযোগিতায় বেসরকারী সংস্থা

লামায় সরকারি কর্মকর্তা, হেডম্যান-কার্বারী ও জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে মতবিনিময়
 খালেদা জিয়া’র বিদেশে সু-চিকিৎসার দাবীতে খাগড়াছড়িতে বিএনপির গণঅনশন পালিত
মানিকছড়িতে অস্ত্রসহ ৩ সন্ত্রাসী আটক

প্রিয়দর্শী বড়ুয়া, লামা প্রতিনিধি: বান্দরবানের লামায় ২২ হাজার ৮২২ দরিদ্র পরিবার ইউ.এস.এ.আই.ডি’র আর্থিক ও এইচ.কে.আই’র কারিগরী সহযোগিতায় বেসরকারী সংস্থা কারিতাসের স্যাপলিং প্রকল্পের আওতায় আর্থ-সামাজিক সুবিধার ভোগ করছেন। গতকাল বুধবার দুপুরে উপজেলা পরিষদ সভা কক্ষে উপজেলা সমন্বয় কমিটির সভায় এ তথ্য দেয়া হয়। প্রকল্প কমিটির সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান থোয়াইনু অং চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় সহ-সভাপতি নির্বাহী অফিসার নূর-এ-জান্নাত রুমি, সদস্য পৌরসভা মেয়র মো. জহিরুল ইসলাম, মু্িক্তযোদ্ধা কমান্ডার শেখ মাহাবুবুর রহমান, প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা জুয়েল মজুমদার, কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা সানজিদা বিনতে সালাম, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বাথোয়াইচিং মার্মা, মো. জাকের হোসেন মজুমদার, ছাচিংপ্রু মার্মা, মিন্টু কুমার সেন, মো. জসিম উদ্দিন, মো. জালাল উদ্দিন ও ফরিদ উল আলম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রকল্পের উপজেলা সমন্বয়ক ও কমিটির সদস্য সচিব ইয়াহিয়া আহমদ মাল্টিমিডিয়া স্লাইড শোর মাধ্যমে প্রকল্পের লক্ষ্য উদ্দেশ্য এবং এ পর্যন্ত অর্জিত সাফল্য চিত্র তুলে ধরেন। প্রকল্পের সমন্বয়ক ইয়াহিয়া আহমেদ জানান, ২০১৫ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর স্যাপলিং প্রকল্পের কার্যক্রম শুরু হয়। আগামী ২০২০ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলের সুবিধা বঞ্চিত জনগোষ্ঠির নারী ও পুরুষের সাম্যতা ভিত্তিতে খাদ্য নিরাপত্তা ও পুষ্টিমান বৃদ্ধি এবং বিপদাপন্ন মানুষের দুর্যোগ সহনশীলতা বৃদ্ধিকরণের ওপর কার্যক্রম চলবে। এর মধ্যে উপজেলার একটি পৌরসভা ও ৭টি ইউনিয়নের ৫৬৫টি পাড়ার ২২ হাজার ৮২২পরিবারের লোকজন প্রকল্পের সুবিধা ভোগ করছেন। প্রকল্প বাস্তবায়নে সকল সদস্যদের সার্বিক সহযোগিতা কামনাও করেন তিনি।