খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদপাহাড়ের সংবাদমানিকছড়িশিরোনামস্লাইড নিউজ

সৃষ্ঠ ঘটনা তদন্তে জেলা প্রশাসক মানিকছড়িতে

স্টাফ রিপোর্টার: মানিকছড়ি উপজেলার নির্বাহী অফিসার আহসান উদ্দিন মুরাদ কর্তৃক শিক্ষক লাঞ্চিত হওয়ার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধসহ সৃষ্ঠ ঘটনা তদন্তে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক রাশেদুল ইসলাম মানিকছড়ি সফর করেছেন। এসময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক এটিএম কাউছার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সালাহ উদ্দিন, জেলা ম্যাজিষ্ট্রেড মাসুদ রানা, অতিরিক্ত দায়িত্ব মানিকছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহিদ ইকবাল উপস্থিত ছিলেন। ডা. মো. নোমান ও জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী আইয়ুব আলী আনছারী বিভিন্ন অভিযোগ তুলে ধরেন। এছাড়াও মানিকছড়ি থানার অফিসার্স ইনচার্জ  মাঈন উদ্দিন খান, উপজেলা চেয়ারম্যান ম্রাগ্য মারমা, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল রাজ্জাক, আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক মাঈন উদ্দিন, শিক্ষক প্রতিনিধি মোঃ অতাউল ইসলাম, দীলিপ কুমার, অজিত কুমার, এমকে আজাদ, ১নং মানিকছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান ফারুক সহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাগন উপস্থিত ছিলেন।

জেলা প্রশাসক রাশেদুল ইসলাম বলেন, আপনারদের বক্তব্য শুনলাম ও লিপিবদ্ধ করলাম। আমি যা শুনেছি তা বিভাগীয় কমিশনারকে অবগত করবো। তবে তিনি সবাইকে ধৈর্য্য ধরে শান্ত থাকার অনুরোধ জানান।

রানী নীহার দেবী সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ে গত ২৭ ডিসেম্বর ভর্তি পরিক্ষা চলাকালী প্রধান শিক্ষক মোফাজ্জল আহম্মদকে মানিকছড়ি উপজেলার নির্বাহী অফিসার আহসান উদ্দিন মুরাদ লাঞ্চিত করার অভিযোগ করে গত ১৮ জানুয়ারী বিদ্যালয় বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতায় অনুষ্টানে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরীর উপস্থিতিে প্রকাশ্যে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বিচার দাবী করেন। পরে গত শনিবার ২০ জানুয়ারী শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ করে। সেনাবাহিনী, পুলিশ ও স্থানীয় গন্যমাণ্য ব্যাক্তিরা এগিয়ে এলে সড়ক অবরোধ তুলে নেয়।

এদিকে সাংবাদিকদের কাছে মানিকছড়ি উপজেলার নির্বাহী অফিসার আহসান উদ্দিন মুরাদ বলেন, শিক্ষক লাঞ্চিত হওয়ার কোনো ঘটনাই ঘটেনি। আর এমন ঘটনা ঘটে থাকলে আগেই প্রকাশ পেতো ২২দিন পরে কেনো? ঘটনাটি সম্পূর্ন সাজানো বলে তিনি দাবি করেন।