১মাস পর অপহৃত মন্টি চাকমা ও দয়া সোনা চাকমা উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার: অপহৃত ইউপিডিএফ’র নারী সংগঠন হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মন্টি চাকমা ও রাঙামাটি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক দয়া সোনা

প্রাচীন মহকুমা শহর রামগড়কে জেলা ঘোষণার দাবী
আচমকা ঝড়বৃষ্টি: এইচএসসি পরীক্ষার্থীরা ভোগান্তির শিকার মানিকছড়িতে
মানিকছড়িতে আ’লীগের প্রচারণার হামলার ঘটনায় প্রতিবাদ মিছিল

স্টাফ রিপোর্টার: অপহৃত ইউপিডিএফ’র নারী সংগঠন হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মন্টি চাকমা ও রাঙামাটি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক দয়া সোনা চাকমা ১মাস পর মুক্তি পেয়েছে। ১৯ এপ্রিল বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে তাদের খাগড়াছড়ি শহরের মধুপুর এলাকায় তাদেও খোঁজ মিলে বলে সূত্রে জানা গেছে।

ইউপিডিএফ’র খাগড়াছড়ি জেলা সংগঠক মাইকেল চাকমা উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ৮টায় খাগড়াছড়ি সদরের মধুপুর এলাকায় অপহৃতদের অভিভাবক ও স্থানীয় মুরব্বীদের জিম্মায় মুক্তি দেওয়া হয়। তবে তারা এখন কোথায় কিভাবে রয়েছেন তা জানাতে পারেন নি তিনি। খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার আলী আহমেদ খান সাংবাদিকদের বলেন, বিষয়টি শুনেছি।

উল্লেখ্য গত ১৮ মার্চ রাঙামাটি সদর উপজেলার কুদুকছড়ির আবাসিক এলাকা থেকে এ ২ নারী নেত্রীকে প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা অস্ত্রের মুখে অপহরণ করে নিয়ে যায়। এ সময় সন্ত্রাসীদের গুলিতে গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের রাঙামাটি জেলা আহ্বায়ক ধর্মশিং চাকমার পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়। ঘটনায় ২১ মার্চ দয়া সোনা চাকমার বাবা বৃষধন চাকমা রাঙামাটির কোতেয়ালী থানায় বাদী হয়ে অপহরণ মামলা রুজু করেন।

ইউপিডিএফ প্রসীত গ্রুপ শুরু থেকেই এ ঘটনার জন্য ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিককে দায়ী করলেও গণতান্ত্রিক ঘটনটিকে প্রসীতপহ্নী ইউপিডিএফ’র আভ্যন্তরীন কোন্দল বলে দাবি করে আসছে।