খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদপাহাড়ের সংবাদমানিকছড়িশিরোনামস্লাইড নিউজ

জাতীয় স্বাস্থ্যসেবা সপ্তাহ উপলক্ষে মানিকছড়িতে র‌্যালি ও আলোচনা সভা

মানিকছড়ি প্রতিনিধি: জাতীয় স্বাস্থ্যসেবা সপ্তাহ-১৯ উদযাপনে মানিকছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ র‌্যালি ও আলোচনা সভার আয়োজন করেছে। ১৮ এপ্রিল বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় দিবসটি পালনে র‌্যালি অনুষ্টিত হয়।

পরে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা.নোমান মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্টিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, মানিকছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহিদ ইকবাল (অ.দা.)। অনুষ্ঠঅনে আরো অতিথি ছিলেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রাহেলা আক্তার, শিক্ষক মো.আতিউল ইসলাম,দীলিপ কুমার দেব, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো. সফিউল আলম চৌধুরী, সমাজসেবা কর্মকর্তা মো. আবদুল মান্নান প্রমূখ। ডা.রুহুল আমিন এর স্বাগত বক্তব্যে অনুষ্টিত সভায় জাতীয় স্বাস্থ্যসেবা সপ্তাহ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, সমাজসেবা কর্মকর্তা মো.আবদুল মান্নান, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো.সফিউল আলম চৌধুরী, শিক্ষক মো.আতিউল ইসলাম, ,দীলিপ কুমার দেব, ডা.শামিমা আক্তার,উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রাহেলা আক্তার ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহিদ ইকবাল(অ.দা.)।

বক্তারা বলেন, বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশ থেকে এখন উন্নত দেশে যাত্রা শুরু করেছে। “প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অবদান, কমিউনিটি ক্লিনিক বাঁচায় প্রাণ” এ শ্লোগানে বিগত কয়েক বছওে দেশের তৃণমূলে শতভাগ স্বাস্থ্য পৌঁছে দিতে নিরলসভাবে কাজ করছে সরকার। ফলে এখন কঠিন,জটিল রোগে বিনা চিকিৎসা কেউ মারা যাচ্ছে না। তবে গ্রাম পর্যায়ে এখানো সচেতনতার অভাবে মানুষ অপ-চিকিৎসায় নানা ধরণের হয়রানীর শিকার হচ্ছে। এ ক্ষেত্রে সবাইকে অন্তত উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে কিংবা ইউনিয়নে কমিউনিটি ক্লিনিকে এসো সঠিক চিকিৎসার আওতায় আনতে সবাইকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে। তাই এবারের জাতীয় স্বাস্থ্যসেবা সপ্তাহে সবার অঙ্গিকার হউক‘ বিনা চিকিৎসার আওতায় কেউই থাকবেনা’। তবেই জাতীয় স্বাস্থ্যসেবা সপ্তাহ সফল হবে।

পরে সভাপতি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা.নোমান মিয়া তাঁর বক্তব্যে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারাদেশে সাড়ে ১৪হাজার কমিউনিটি ক্লিনিক প্রতিষ্ঠা করে শতভাগ চিকিৎসাসেবার সুযোগ সৃষ্টি করেছেন। অথচ সচেতনতার অভাবে এখনো অনেক মানুষ স্বাস্থ্য কেন্দ্রে আসছেনা। কবিরাজ,বৈদ্যের কাছে গিয়ে প্রতারিত হচ্ছে। এ ক্ষেত্রে সচেতন ব্যক্তিবর্গ,শিক্ষক,সাংবাদিক,জনপ্রতিনিধিরা এগিয়ে এলে কেউই আর প্রতারণা শিকার কিংবা অপ-চিকিৎসায় মরবে না।