উপজেলা নির্বাচনখাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদপাহাড়ের সংবাদশিরোনামস্লাইড নিউজ

বাঘাইছড়িতে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহতের ঘটনায় কাল সকাল-সন্ধ্যা হরতাল

প্রেস বিজ্ঞপ্তি: উপজাতি সন্ত্রাসীদের ব্রাসফায়ারে নির্বাচন কর্মকর্তা ও আনসার সদস্যসহ ৮জনকে হত্যা ও রাঙ্গামাটি জেলার বিলাইছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুরেশ কান্তি তঞ্চঙ্গ্যাকে গুলি করে হত্যা করার এবং উপজাতি সন্ত্রাসীদের উস্কানি দাতা মহিলা সাংসদ বাসন্তী চাকমার অপসারনের দাবীতে আগামীকাল ২০ তারিখ রোজ বুধবার খাগড়াছড়ি জেলায় সকাল সন্ধ্যা হরতালের ডাক দিয়েছে পার্বত্য বাংগালী ছাত্রপরিষদ। আজ পার্বত্য বাংগালী ছাত্রপরিষদ খাগড়াছড়ি জেলা শাখা ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মো: রবিউল হোসেন

 ১৮ মার্চ  রাঙ্গামাটি জেলার বাঘাইছড়িতে শান্তিপূর্ণ ভোট গ্রহন শেষে নির্বাচনী সরঞ্জাম নিয়ে ফেরার পথে বাঘাইছড়ির নয় কিলোমিটার এলাকায় উপজাতি আঞ্চলিক সন্ত্রাসী সংগঠনের ব্রাস ফায়ারে প্রিসাইডিং কর্মকর্তাসহ নিহত ৭ এবং ১১ এর অধিক আহত হয়েছেন, নিহতরা হলেন শিক্ষক আমির আলী,আনসার সদস্য-আল আমিন,মিহির কান্তি দত্ত,জাহানারা বেগম ,বিলকিছ,গাড়ির হেলপার মন্টু চাকমা।

গুরুতর আহতদেরকে হেলিকপ্টারে করে উন্নত চিকিৎসা করার জন্য নেওয়া হয়েছে সম্মেলিত সামরিক হাসপাতালে,উক্ত জঘন্য ঘটনার প্রতিবাদে খাগড়াছড়ি জেলা সদরে, মাটিরাংগা,রাংগামাটি জেলাসহ বিভিন্ন এলাকায় তাতক্ষনিক বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশের মাধ্যমে ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্রপরিষদ।

বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে দ্রুত যৌথ অভিযান চালিয়ে সন্ত্রাসীদেরকে গ্রেপ্তার ও সকল অবৈধ অস্র উদ্ধারের জন্য ২৪ ঘন্টা আল্টিমেটাম দেওয়া হয়, কিন্তু ১৮ ঘন্টা অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত প্রশাসনের লক্ষণীয় কোন সাড়া না পাওয়ায় ছাত্রপরিষদের এক জরুরী বৈঠক সিদ্ধান্তের আলোকে হরতালের মতো কঠিন কর্মসূচী দিতে বাধ্য হয়।

পাহাড়ে একের পর এক সন্ত্রাসীদের হত্যাকান্ডে বসবাসের অযোগ্য হয়ে পরেছে পার্বত্য জনপদ। ইউপিডিএফ, জেএসএস এর মতো সন্ত্রাসী সংগঠন গুলো সব সময় পার্বত্য এলাকাকে নৈরাজ্য পূর্ন এলাকায় পরিনত করেছে। তাই এসব সন্ত্রাসী অস্ত্রধারি সংগঠন গুলোকে নিষিদ্ধকরণ এর দাবী ও উপজাতি সন্ত্রাসীদের মদতদাতা মহিলা সাংসদ বাসন্তী চাকমাকে সংসদ পদ থেকে অপসারনের দাবিতে এই শান্তিপূর্ণ হরতাল পালনের আহবান জানান পার্বত্য বাংগালী ছাত্রপরিষদ।

শান্তিপূর্ণ হরতাল পালনের ক্ষেত্রে প্রশাসন সহ সকল আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহযোগীতা কামনা করছি,হরতাল পালনের সময় কোন প্রকার বাধা প্রদান করলে লাগাতার হরতাল দিয়ে তিন পার্বত্য জেলাকে অচল করে দেওয়া হবে।